মঙ্গলবার-১২ নভেম্বর ২০১৯- সময়: রাত ১১:৫৯
ঘোড়াঘাটে বানিজ্যিক ভাবে মাল্টা বাগান করে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে নাটোরের প্রতিবন্ধি প্রবীণ দম্পত্তি ভাতা নয়, চায় মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি নবাবগঞ্জে ইঁদুর কেটে ফেলছে কাঁচা আমন ধানের রোপা উৎপাদন ব্যাহত হওয়ার আশংকা কমেছে সময় ও দুর্ঘটনা,ঝালকাঠিতে ১৪ কি.মি মহাসড়ক নির্মাণ, স্বস্তিতে দক্ষিন-পশ্চিমাঞ্চলের যাত্রীরা রাজাপুরে ব্যক্তি উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের জন্য ব্রীজ নির্মান, বই ও বেঞ্চ প্রদান মুক্তিযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ প্রসঞ্জী রায়এর পাশে- এমপি গোপাল ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষে হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল হাসপাতালে লাইভ ওয়ার্কশপে বাংলাদেশে সবচেয়ে বড় রিং (স্টেন্ট) সফল প্রতিস্থাপন সম্পন্ন ধামইরহাটে তিন ভূয়া ডিবি পুলিশ আটক সম্মানি না পেয়ে চিকিৎসা দিতে এলেন হারবাল এ্যাসিস্টেন্ট!

সিলেট newsdiarybd.com:

বিরামপুরে সেতুবন্ধন ও প্রতিধ্বনির বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি

বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি-“সবাই মিলে গাছ লাগাই, দূষণ থেকে পরিবেশ বাঁচাই” এই প্রতিপাদ্য নিয়ে দিনাজপুরের বিরামপুরে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘সেতুবন্ধন’ ও ‘প্রতিধ্বনি শিল্পীগোষ্ঠী’র যৌথ উদ্যোগে ১৪-১৫ জুলাই ২ দিন ব্যাপী বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।

কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিরামপুর সরকারি কলেজ, পাইলট ও কলেজিয়েট উচ্চ বিদ্যালয় সহ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিম, বকুল, চালতা ও জলপাই গাছের চারা রোপণ করা হয়। চারা রোপণকালে নিজ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ এতে অংশগ্রহণ করেন।

বিরামপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ ফরহাদ হোসেনের সহযোগীতাই সেখানে চারা রোপণ করেন, উপাধ্যক্ষ অদৈত কুমার অপু। কলেজিয়েট উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক শফিকুল ইসলাম, সহকারী শিক্ষক হাফিজুর রহমান, এনামুল হক এবং পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক আরমান আলী, সহকারী শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান, মশিউর রহমান ও শিক্ষার্থীরা গাছের চারা রোপণ করেন।

দুই দিনব্যাপী উক্ত কর্মসূচি পালনে সেতুবন্ধনের সভাপতি মোঃ সামিউল আলম, সহসভাপতি ইলিয়াস মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল হোসেন, কার্যনির্বাহী সদস্য মমিনুর রহমান, সদস্য সামিউল ইসলাম, প্রতিধ্বনি শিল্পীগোষ্ঠীর নির্বাহী পরিচালক ফসিউর রহমান, পরিচালক ইস্পাহানী সরকার, সহঃ পরিচালক ফরিদুল ইসলাম সহ উভয় সংগঠনের অন্যান্য সদস্যরা উক্ত কার্যক্রম পরিচালনা করেন।

সংগঠনের সদস্যরা জানান, “বর্তমানে প্রকৃতিতে যে হারে অক্সিজেনের মাত্রা হ্রাস পাচ্ছে এবং কার্বন-ডাই-অক্সাইডের পরিমান বেড়ে যাচ্ছে, তাতে পরিবেশের উপর যেকোন সময় এক ধরনের বিপর্যয় নেমে আসতে পারে।

যাতে মানুষ সহ অন্যান্য প্রাণীকুল অক্সিজেনের অভাবে কঠিন এক সংকটের মুখে পড়বে। তাই পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার তাগিদে এবং দূষণ রোধের অংশ হিসেবে আমাদের এই বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি গ্রহণ।” পরিবেশ রক্ষায় সমাজের প্রত্যেকেই বৃক্ষরোপণ কাজে এগিয়ে আসবে বলে তাঁরা আশাবাদ ব্যাক্ত করেন।

 

Upload Files

পাঁচবিবিতে কৃত্রিম প্রজনন পয়েন্টের শুভ উদ্বোধন

পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি- ১৮ অক্টোবর বৈকালে জেলার পাঁচবিবি উপজেলার সীমান্ত ঘেঁষা বাজগানা ইউনিয়নে কৃত্রিম প্রজনন কয়া পয়েন্টের শুভ উদ্বোধন করা হয়।

উপজেলা প্রানী সম্পদ দপ্তরের উদ্দোগ্যে এলাকার গোবাদি পশুর স্বাস্থ্য সেবার মান বাড়াতে রামভদ্রপুর চৌমহনী বাজারে এ কৃত্রিম প্রজনন পয়েন্ট কেন্দ্রটি চালু করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, বাগজানা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নাজমুল হক। এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল হাকিম মন্ডল, মৌমিতা টের্ড্রাসের পরিচালক মাসুদ রানা ও স্থানীয় কৃত্রিম প্রজনন পয়েন্টের মাঠকর্মি মোঃ হোসেন আলী প্রমুখ।

যশোরে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি আটক

যশোর প্রতিনিধি-যশোর কোতয়ালি থানার পুলিশ সাজাপ্রাপ্ত আসামি কবির হোসেন বেপারিকে আটক করেছে।সে যশোর সদর উপজেলার বালিয়াভেকুটিয়া এলাকার আমিন উল্লাহর ছেলে।

যশোর কোতয়ালি থানার এসআই মানিক চন্দ্র গাইন জানান, মঙ্গলবার সকালে পুলিশ যশোর সদরের ভেকুটিয়া এলাকায় অভিযান চালানো হয়।

এ সময় কবির হোসেন বেপারিকে আটক করা হয়েছে। ঝিকরগাছার মেম্বার ইসমাইল হত্যা মামলায় আদালত তাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রদান করে। সাজাপাপ্ত হওয়ার পর থেকে সে পালিয়ে বেড়াচ্ছিল।

বালাগঞ্জে সূচনা প্রকল্পের উদ্যোগে কিশোরী সমাবেশ

এনজিও সংবাদ ডেস্ক-‘‘যুবদের জাগরণ, বাংলাদেশের উন্নয়ন’’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে বালাগঞ্জে আরডিআরএস বাংলাদেশ, সূচনা প্রকল্পের উদ্যোগে বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ হলরুমে কিশোরী সমাবেশ অনুষ্টিত হয়েছে।

উপজেলা গভর্নেন্স অফিসার মো: দেলোয়ার হোসেন এর সঞ্চালনায় সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: আবদুল হক। সমাবেশে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন সূচনা প্রকল্পের ইউনিয়ন সমন্বয়কারী মো: তরিকুল ইসলাম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কমকর্তা গৌরাঙ্গ চন্দ্র মন্ডল, সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা ড: আবুল কালাম আজাদ, এ্যাডুলিসেন্ট ম্যানেজার, সেভ দ্যা চিলড্রেন শরমিন আক্তার, সহকারী প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর,সূচনা জনাব,আবু রায়হান।

সমাবেশে বালাগঞ্জের বিভিন্ন ইউনিয়নের সূচনা কিশোরী ক্লাবের পিয়ার লিডারদের অংশগহনে দেয়ালিকা উন্মোচন, বিতর্ক প্রতিযোগিতা, ওপেন কুইজ প্রতিযোগিতা ও গনসচেতনতা মূলক নাঠিকা প্রদর্শন করা হয়।

উক্ত অনুষ্টানের ফাকে ফাকে কিশোরীরা গান, নৃত্য, কবিতা আবৃত্তির মাধ্যমে অনুষ্টানকে প্রাণবন্ত করে তুলেন। অনুষ্টান শেষে ইভেন্ট বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সূচনা প্রকল্পের ইউনিয়ন কো-অর্ডিনেটর উসমান গনি, টেকনিক্যাল স্পেশালিষ্ট জনাব,শাহিনুর হাসান, ফিশারিজ ডেভেলপমেন্ট অফিসার মোস্তফা কামাল,ফিল্ড ফ্যাসিলিটেটর পাভেল কান্তি সরকার, আহসান হাবিব, জহুরুল হক, আসমা আক্তার, ফারজানা আক্তার, ইমরানা আক্তার,মাজেদা আক্তার ও সূচনা কমিউনিটি মুবিলাইজার বৃন্দ এবং সূচনা বিভিন্ন কিশোরী কøাবের পিয়ার লিডারবৃন্দ।

কিশোরী পিয়ার লিডারদের সমাবেশের মূল উদ্দেশ্য হলোঃ জীবন দক্ষতা ও কিশোরী পুষ্টি বিষয়ক চর্চার অভিজ্ঞতা বিনিময় , কিশোরী ক্লাবের নতুন নতুন শিখন ক্ষেত্র চিহ্নিত করা , কিশোরী পিয়ার লিডারদের মধ্যে একতা গড়ে তোলা যা পুষ্টি উন্নয়নে বিশেষ ভ’মিকা রাখবে ।

মাছ চাষ সম্প্রসারণে শ্রেষ্ঠ বেসরকারী সংস্থা হিসেবে আরডিআরএস বাংলাদেশ-সূচনা প্রকল্পের সফলতা

‘‘স্বয়ংসম্পূর্ন মাছে দেশ, বঙ্গব্ধুর বাংলাদেশ’’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে বালাগঞ্জে সিলেট আরডিআরএস বাংলাদেশ, সূচনা প্রকল্প ও উপজেলা মৎস্য অধিদপ্তরের যৌথ উদ্যোগে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০১৮ উদযাপন উপলক্ষে র‌্যালী, পোনা অবমুক্তকরন, আলোচনা সভা, রচনা প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্টিত হয়েছে।

গত ১৯ অক্টোবর সকাল ১১:০০ ঘটিকায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার  মো: আব্দুল হক ও সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা  ড: আবুল কালাম আজাদ এর নেতৃত্বে উপজেলা চত্তর থেকে বিশাল র‌্যালী বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পূনরায় উপজেলা চত্তরে এসে শেষ হয়।

র‌্যালী শেষে উপজেলা পরিষদের পুকুরে পোনা মাছ অবমুক্ত করা হয়। সকাল ১১:৪০ ঘটিকায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়।

সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা  নির্মল চন্দ্র বণিক এর সঞ্চালনায় সভায় সভাপতিত্ব করেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার  মো: আবদুল হক, সভায় স্বাগত বক্তব্য ও মৎস্য অধিদপ্তরের উন্নয়ন কার্যক্রম উপস্থাপন করেন, সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা ড: আবুল কালাম আজাদ।

প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রধান করেন, বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো: আবদাল মিয়া। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমন চন্দ্র দাশ।

বালাগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) এস এম জালাল উ্িদ্দন, বালাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মুনিম, সূচনা প্রকল্পের উপজেলা উপজেলা প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর  মো: এমদাদুল হক ও বালাগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি  রজত চন্দ্র ভূলন প্রমূখ।

এসব কর্মসূচীতে সূচনা প্রকল্পের নারী মৎস্য চাষী, প্রকল্পের কর্মকর্তাবৃন্দ ও ফিল্ড কর্মীসহ বিপুল সংখ্যক মৎস্যজীবি, মৎস্যজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা শেষে সফল প্রান্তিক মাছচাষী হিসেবে সূচনা প্রকল্পের নারী মাছ চাষী রেজিয়া বেগমকে ও মৎস্য চাষ সম্প্রসারণে শ্রেষ্ঠ বেসরকারী সংস্থা হিসেবে আরডিআরএস বাংলাদেশ- সূচনা প্রকল্পকে উপজেলা মৎস্য দপ্তরের পক্ষ থেকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করেন। এবং সূচনা প্রকল্পের উদ্যোগে উপজেলার বোয়ালজুর উচ্চ বিদ্যালয় ও তয়রুননেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮ম থেকে ১০ম শ্রেনীর ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে রচনা প্রতিযোগিতা ও বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

সিলেটে সরকারী কর্মকর্তা ও সূধীজন নিয়ে সূচনা প্রকল্পের কর্মশালা

মো: এমদাদুল হক- বাংলাদেশে অপুষ্টির চক্র প্রতিরোধে একটি প্রয়াস। সূচনা প্রকল্প কার্যক্রম গতিশীল করার জন্য ওসমানীনগর উপজেলায় সরকারী কর্মকর্তা ও স্থানীয় সরকার প্রতিনিধিদের সহযোগিতা জোরদারকরন বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্টিত হয়েছে।  সোমবার সকালে  সূচনা প্রকল্প অফিস, ওসমানীনগর, সিলেটে এ কর্মশালা অনুষ্টিত হয়।

কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আনিছুর রহমান এবং প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন, ওসমানীনগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ময়নুল হক চৌধুরী ।

মনিটরিং এন্ড ইভ্যালুয়েশান কর্মকর্তা চাঁদনী রায় এর সঞ্চালনায় সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন, সূচনা প্রকল্প সমন্বয়কারী মো: ফরাজদুক ভ’ইয়া। প্রকল্প কার্যকমের অগ্রগতি সভায় উপস্থাপন করেন, খালেদা খানম, সিনিয়র ম্যানেজার কনসোর্টিয়াম, সেভ দ্যা চিলড্রেন বাংলাদেশ।

সূচনা প্রকল্প কার্যক্রম আরো জোরদার করার জন্য সরকারী কর্মকর্তাদের সহযোগিতার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডা: মো শহিদুল ইসলাম, মেডিক্যাল অফিসার ডা: গৌরী দেবনাথ, প্রমুখ ।

কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ গয়াছ মিয়া, পিডিবিএফ কর্মকর্তা জনাব শাহ সুলতান আহমেদ প্রমূখ ।

কর্মশালায় মুক্ত আলাচনায় অংশগ্রহন করেন, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আব্দুস সালাম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকতা জনাব মোঃ হাবিবুর রহমান।

উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মো: আব্দুর রাজ্জাক, অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) ওসমনীনগর থানা এস এম মাইন উদ্দিন, উপজেলা ম্যানেজার সূর্যের হাসি ক্লিনিক ফজলুর রহমান।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা প্রকল্প সমন্বয়কারী জনাব মো: এমদাদুল হক, মো: মিজানুল হক, উপজেলা গভর্নেন্স অফিসার সূচনা প্রকল্প মো: নজরুল ইসলাম, ফিশারিজ ডেভেলপমেন্ট অফিসার ওয়ার্ল্ড ফিশ মোস্তফা কামাল, ইউনিয়ন সমন্বয়কারী সূচনা প্রকল্প তরিকুল ইসলাম, পিএসআইএসও নিতাই চাঁদ বর্মন, মনিটরিং এন্ড ইভ্যালুয়েশান কর্মকর্তা আছমা আক্তার ও ফিল্ড ফ্যাসিলিটেটর রুজিনা প্রমূখ।

উল্লেখ্য, দরিদ্র পরিবার সমূহের অপুষ্টি দূরীকরন ও শিশুদের মধ্যে খর্বতার হার কমিয়ে আনতে ইউকে এইড এবং ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের আর্থিক সহায়তায় বাংরাদেশ সরকারের ৮টি মন্ত্রনালয় ও আরডিআরএস সহ ৮টি সংস্থা যৌথভাবে সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলায় কাজ করে আসছে।

বালাগঞ্জের মৎস্য চাষী সংযোগ ও সমাবেশ

২৯মার্চ  সকালে  বালাগঞ্জের বোয়ালজুর ইউনিয়নে সূচনা কর্মসূচীর আওতায় মৎস্য চাষী সংযোগ সমাবেশ ও ফলাফল প্রদর্শন শীর্ষক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, ডঃ মোঃ আবুল কালাম আজাদ, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য অফিসার, বালাগঞ্জ, সিলেট।

উক্ত সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন, সুচনা-ওয়াল্ডফিশ এর ফিশারীজ ডেভেলপমেন্ট অফিসার  মোস্তফা কামাল, আরডিআরএস এর পিএসআইএসও মোঃ শফিকুল ইসলাম, জিসিডিও মোঃ দেলওয়ার হোসেন, এফএফ মোঃ জহুরুল ইসলাম, এফএফ মোঃ রুবেল হোসেন, এফএফ ইমরানা বেগম, সূচনার মৎস্যচাষী সদস্য এবং অন্যান্য উপকারভোগী।

অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন, সূচনার ইউনিয়ন কো-অর্ডিনেটর মোঃ তরিকুল ইসলাম। সমাবেশে বক্তারা মাছ চাষের মাধ্যমে পুষ্টি উন্নয়নের ব্যাপারে গুরুত্ব আরোপ করেন। সমাবেশ শেষে পুকুরের মাছ ধরে অতিথিদের দেখানো হয়।

উল্লেখ্য, সূচনা প্রকল্প দরিদ্র পরিবার সমূহের অপুষ্টি দুরিকরন ও শিশুদের মধ্যে খর্বতার হার কমিয়ে আনতে ইউকে এইড এবং ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের আর্থিক সহায়তায় বাংরাদেশ সরকারের ৮টি মন্ত্রনালয় ও আরডিআরএস সহ ৮টি সংস্থা যৌথভাবে সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলায় কাজ করে আসছে।সূচনা কর্মসূচী হচ্ছে-অতি দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মা ও শিশুদের অপুষ্টি দূরীকরণে পুষ্টি বিষয়ক একটি সমন্বিত কর্মসূচী।

যার লক্ষ্য- সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলায় অতি দরিদ্র পরিবারে মা ও শিশুদের পুষ্টি অবস্থার উন্নয়নের মাধ্যমে ২ বছরের কম বয়সী শিশুদের খর্বাকৃতির হার ৩ বছরের মধ্যে অতিরিক্ত ৬% কমিয়ে আনা।

সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলার ২.৫ লক্ষ দরিদ্র ও অতি দরিদ্র পরিবারের সন্তান জন্মদানে সক্ষম নারী (১৫-৪৫ বছর বয়সী গর্ভবতি ও দুগ্ধদানকারী মা অথবা অন্যন্যা নারী), ১৫ থেকে ১৯ বছর বয়সী কিশোরী এবং ২-বছরের কম বয়সী শিশুরা হচ্ছে কর্মসূচীর লক্ষ্যিত (টার্গেট) উপকারভোগী।

সূচনা কর্মসূচি ও ইউনিয়ন পরিষদ পারস্পারিক সহযোগিতা জোরদারকরণ কর্মশালা

এমদাদুল হক-সূচনা বাংলাদেশে অপুষ্টির চক্র প্রতিরোধে একটি প্রয়াস। সূচনা প্রকল্প কার্যক্রম গতিশীল করার জন্য সিলেট জেলার ২৬ টি

ইউনিয়ন পরিষদ এর  চেয়ারম্যান গণ তথা স্থানীয় সরকার প্রতিনিধিদের সহযোগিতা জোরদারকরণ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্টিত হয়েছে। ২৯মার্চ  সকালে  সিলেট শহরের হোটেল মেট্রো তে এক কর্মশালা অনুষ্টিত হয়।

সেভ দি চিলড্রেনের সিনিয়র ম্যানেজার-কনসোর্টিয়াম খালেদা খানম এর সঞ্চালনায় সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন, সূচনা প্রজ্ক্টে কো-অর্ডিনেটর মো: ফরাজদুক ভ’ইয়া। প্রকল্প কার্যকমের অগ্রগতি সভায় উপস্থাপন করেন, সেভ দি চিলড্রেনের সিনিয়র ম্যানেজার-জীবিকায়ন মো: মাহবৃব হাসান ।

সূচনা প্রকল্প কার্যক্রম আরো জোরদার করার জন্য ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের সহযোগিতার বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হয়। কর্মশালায় মুক্ত আলাচনায় অংশগ্রহন করেন, উপস্থিত বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানগণ ।

এছাড়া ও উপস্থিত ছিলেন, হেলেন কেলার ইন্টারন্যাশনালের ডিভিশনাল ম্যানেজার মো : নাজমূল হুদা, আইডিই এর প্রকল্প ম্যানেজার বাবলু কুমার বড়ুয়া, আরডিআর এস বাংলাদেশের এ্যাসিস্ট্যান্ট প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর মো: আবু রায়হান, উপজেলা প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর মো: এমদাদুল হক, মো: মিজানুল হক, মো: মোছাব্বের রহমান, মো: মাহফুজুর রহমান-এবং মো: আব্দুর রব প্রমুখ।

উল্লেখ্য, দরিদ্র পরিবার সমূহের অপুষ্টি দুরিকরন ও শিশুদের মধ্যে খর্বতার হার কমিয়ে আনতে ইউকে এইড এবং ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের আর্থিক সহায়তায় বাংরাদেশ সরকারের ৮টি মন্ত্রনালয় ও আরডিআরএস সহ ৮টি সংস্থা যৌথভাবে সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলায় কাজ করে আসছে।

সূচনা কর্মসূচী হচ্ছে-অতি দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মা ও শিশুদের অপুষ্টি দূরীকরণে পুষ্টি বিষয়ক একটি সমন্বিত কর্মসূচী। যার লক্ষ্য- সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলায় অতি দরিদ্র পরিবারে মা ও শিশুদের পুষ্টি অবস্থার উন্নয়নের মাধ্যমে ২ বছরের কম বয়সী শিশুদের খর্বাকৃতির হার ৩ বছরের মধ্যে অতিরিক্ত ৬% কমিয়ে আনা।

সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলার ২.৫ লক্ষ দরিদ্র ও অতি দরিদ্র পরিবারের সন্তান জন্মদানে সক্ষম নারী (১৫-৪৫ বছর বয়সী গর্ভবতি ও দুগ্ধদানকারী মা অথবা অন্যন্যা নারী), ১৫ থেকে ১৯ বছর বয়সী কিশোরী এবং ২-বছরের কম বয়সী শিশুরা হচ্ছে কর্মসূচীর লক্ষ্যিত (টার্গেট) উপ-কারভোগী।

কর্মকর্তা ও স্থানীয় সরকার প্রতিনিধিদের সহযোগিতা জোরদারকরন বিষয়ক কর্মশালা

বাংলাদেশে অপুষ্টির চক্র প্রতিরোধে একটি প্রয়াস। সূচনা প্রকল্প কার্যক্রম গতিশীল করার জন্য বালাগঞ্জ উপজেলায় সরকারী কর্মকর্তা ও স্থানীয় সরকার প্রতিনিধিদের সহযোগিতা জোরদারকরন বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্টিত হয়েছে।

সোমবার সকালে বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়াম এ কর্মশালা অনুষ্টিত হয়।

কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার  প্রদীপ সিংহ এবং প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন, বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব, মো: আবদাল মিয়া।

উপজেলা প্রকল্প সমন্বয়কারী মো: এমদাদুল হক এর সঞ্চালনায় সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন, সূচনা প্রকল্প সমন্বয়কারী জনাব মো: ফরাজদুক ভ’ইয়া। প্রকল্প কার্যকমের অগ্রগতি সভায় উপস্থাপন করেন, এ্যানিমেল হাজবেন্ডরি স্পেশালিষ্ট এইচ কে আই মো: হেমায়েত হোসেন ।

সূচনা প্রকল্প কার্যক্রম আরো জোরদার করার জন্য সরকারী কর্মকর্তাদের সহযোগিতার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মো: আনিসুর রহমান, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা  কৃষিবিদ এম এ মালেক, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা গৌরাঙ্গ চনদ্র মন্ডল, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মো: আব্দুর রাজ্জাক প্রমুখ।

কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন, সহকারী কমিশনার ভ’মি জনাব তানভির হাসান রুমন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ মো: আলী আছগর প্রমূখ ।

কর্মশালায় মুক্ত আলাচনায় অংশগ্রহন করেন, উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা মো: মোতালেব এবং জয়িতা নারী – মোছা: রাজনা বেগম, এফআইভিডিবি- মমতা প্রকল্পের উপজেলা সমন্বয়কারী তুষার আহমেদ, উপজেলা ম্যানেজার সূর্যের হাসি ক্লিনিক- ফজলুর রহমান।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা গভর্নেন্স অফিসার, সূচনা প্রকল্প মো: দেলোয়ার হোসেন, ফিশারিজ ডেভেলপমেন্ট অফিসার- ওয়াল্ড ফিশ মোস্তফা কামাল, সাংবাদিক-শাহাবুদ্দিন শাহিন ও জিল্লুর রহমান জিলু, ইউনিয়ন সমন্বয়কারী, সূচনা প্রকল্প সীমা বড়–য়া, ইউনিয়ন সমন্বয়কারী ওসমান গনি ও ফিল্ড ফ্যাসিলিটেটর আছমা আক্তার প্রমূখ।

উল্লেখ্য, দরিদ্র পরিবার সমূহের অপুষ্টি দুরিকরন ও শিশুদের মধ্যে খর্বতার হার কমিয়ে আনতে ইউকে এইড এবং ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের আর্থিক সহায়তায় বাংরাদেশ সরকারের ৮টি মন্ত্রনালয় ও আরডিআরএস সহ ৮টি সংস্থা যৌথভাবে সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলায় কাজ করে আসছে।

ধামইরহাটে বঙ্গবন্ধুর ৯৮তম জন্মবার্ষিকী পালিত

ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি-নওগাঁর ধামইরহাটে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে শনিবার উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে র‌্যালী বের করা হয়।

র‌্যালী শেষে শিশুদের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর জন্ম দিনের কেক কাটা হয়। পরে উপজেলা স্মৃতিসৌধে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সফিউজ্জামান ভুইয়ার সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় সংসদের হুইপ মো. শহীদুজ্জামান সরকার এম.পি।

আলোচনা সভায় অন্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন, থানা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. শহীদুল ইসলাম, জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ্ব মো.নুরজ্জামান হোসেন,সাংগঠনিক সম্পাদক মো.আজাহার আলী,উপজেলা প্রকৌশলী মো.আলী হোসেন,উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জহুরুল ইসলাম, হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম, একাডেমিক সুপারভাইজার কাজল কুমার দেবনাথ,সহকারী অধ্যাপক আনম আফজাল, সাবেক ইউপি সদস্য আঞ্জুয়ারা বেগম প্রমুখ।

আলোচনা শেষে চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এছাড়া উপজেলা গ্রন্থাগারে বঙ্গবন্ধু পাঠচক্র, উপজেলা পাবলিক লাইব্রেরী ও হাজী মহফিল হোসেন ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর জীবনীর উপর পুস্তক প্রদর্শন করা হয়।