রবিবার-১৭ নভেম্বর ২০১৯- সময়: ভোর ৫:১৯
৭ কেজি চালের মূল্যে মিলছে ১কেজি পেয়াজ বিরামপুরের বাজারে চিকিৎসা সেবা দিয়ে মানব সেবা করতে চাই-পর্যটন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব হুমায়ুন কবীর বিরামপুরে নেশার ইনজেকশন ও ফেন্সিডিলসহ আটক-৩ হিলি চেকপোস্টে বিজিবি’র গোয়েন্দা সদস্যের বিরুদ্ধে সাংবাদিককে হয়রাণীর অভিযোগ বিরামপুরে বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস পালিত বিরামপুরে প্রকল্প সমাপনী কর্মশালা গরীব ও অসহায় মানুষকে চিকিৎসা সেবা দিতে পারলে আমি শান্তি পাই জনবল ও সরঞ্জামের অভাবে আজও চালু হয়নি, নবাবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস স্টেশন “প্রেসিডেন্ট পদক” অর্জন বিরামপুরের কৃতি সন্তান ফায়ার সার্ভিসের গোলাম রওশন ঘোড়াঘাটে বানিজ্যিক ভাবে মাল্টা বাগান করে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে

তথ্য প্রযুক্তি newsdiarybd.com:

বিরামপুরের শিক্ষক বেনজির ডিজিটাল কন্টেন্ট নির্মাণে দেশসেরা নির্বাচিত

মোঃ আব্দুর রাজ্জাক,বিশেষ প্রতিনিধি-দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার কেটরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক এ,এফ,এম বেনজির হক “শিক্ষক বাতায়নে” এ সপ্তাহের সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা হওয়ার গৌরব অর্জন করেছেন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দফতর কর্তৃক a2i প্রকল্পের অধীনে পরিচালিত শিক্ষা বিভাগের জনপ্রিয় পোর্টাল ও ডিজিটাল শিক্ষাদান পদ্ধতি উন্নয়নের ভান্ডার ”শিক্ষক বাতায়ন” যেখানে দুই লক্ষ ষাট হাজারেরও বেশী শিক্ষক প্রাথমিক স্তর থেকে শুরু করে উচ্চ মাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত মাল্টিমিডিয়া ক্লাস পরিচালনার জন্য ডিজিটাল কন্টেন্ট তৈরী করে আসছেন ।

ডিজিটাল এ বাংলাদেশে শিক্ষা ব্যবস্থাকে ডিজিটাল ক্লাস রুমে রূপান্তরিত করতে যে ক’জন প্রতিভাবান শিক্ষক সেচ্ছায় নিরলস পরিশ্রম করে সারা দেশের শিক্ষকদেরকে মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে ক্লাস নিতে সহায়তাস্বরূপ ডিজিটাল কন্টেন্ট নির্মান করে বিশেষ অবদান রাখছেন তাদেরই একজন কেটরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক এ,এফ,এম, বেনজির হক।

তিনি এ সপ্তাহে (২৯ তম)ডিজিটাল কন্টেন্ট নির্মান করে সারা বাংলাদেশে সেরা তিন জনের একজন হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন ৷ গত শুক্রবার ১৯ জুলাই শিক্ষক বাতায়ন সরকারি ওয়েব সাইটে এ ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে ৷

শিক্ষক বাতায়ন সূত্রে জানা যায়, সারাদেশের প্রায় ৯ লাখ শিক্ষক-শিক্ষিকা আছেন। তাদের মধ্যে আইসিটি ইন এডুকেশনে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত শিক্ষক হচ্ছেন ৩ লাখ ৬৮ হাজার ৭৪৭ জন। এবার ১ লাখ ৬০ হাজার ৭৭৭টি কন্টেন্ট শিক্ষা বাতায়নে আপলোড করা হয়েছে। এর মধ্যে মডেল কন্টেন্ট ৯৪৩টি। ২৯ তম সপ্তাহে সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা বেনজির হক কন্টেন্ট আপলোড করেছেন ৩১টি।

এ,এফ,এম,বেনজির হক’র এ সাফল্যে উপজেলা শিক্ষা অফিসার মিনারা বেগম, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলাম সহ সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ তাঁকে অভিনন্দন জানান।

বেনজির হক শিক্ষক বাতায়নের সপ্তাহের সেরা কন্টেন্ট নির্মাতার সম্মাননা অর্জন করায় অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষক, বাতায়নের কর্তৃপক্ষ ও বাতায়ন পরিবারের নিকট কৃতজ্ঞতা স্বীকার করেন যাঁরা তাকে সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা হিসেবে মনোনীত করেছেন। তিনি ২০১৮ সালে বিরামপুর উপজেলার শ্রেষ্ঠ শ্রেনী শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছিলেন।

তিনি সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন যেন কর্মজীবনে উত্তরোত্তর সফলতা লাভ করতে পারেন এবং নিজের মেধা ও পরিশ্রম দিয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য মানসম্মত ও শ্রেণি উপযোগী ডিজিটাল কন্টেন্ট তৈরী করে শিক্ষক বাতায়নকে আরো সু-সমৃদ্ধ করতে পারেন।

বাজারে এইচপির নতুন ল্যাপটপ

দেশের বাজারে প্রথমবারের মতো ৮ম প্রজন্মের নতুন ইন্টেল প্রসেসরযুক্ত এইচপি ব্র্যান্ডের পৃথক তিনটি সিরিজের ২৬টি মডেলের ল্যাপটপ এসেছে। এর মধ্যে রয়েছে এইচপি সিরিজের ১১টি মডেল, প্যাভিলিয়ন সিরিজের ৭টি মডেল এবং স্পেক্টরা সিরিজের ৫টি মডেল।

এইচপি স্পেক্টরা এক্স ৩৬০ কনভার্টেবল ল্যাপটপগুলো স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তি সম্পন্ন। স্পেক্টর সিরিজের সবচেয়ে এক্সক্লুসিভ মডেল ১৩-এপি ০০৭৭ টিইউ। ৮ম প্রজন্মের নতুন ইন্টেল কোর আই সেভেন প্রসেসরযুক্ত এ ল্যাপটপে রয়েছে ১৬ জিবি ডিডিআর ৪ র‍্যাম, ৫১২ জিবি এসএসডি, ১৩ দশমিক ৩ ইঞ্চি ফুল এইচডি টাচ ডিসপ্লে, ওয়েব ক্যাম, ওয়াইফাই এবং অরিজিনাল উইন্ডোজ ১০। ২ বছরের বিক্রয়োত্তর সেবাসহ এই ল্যাপটপটির মূল্য এক লাখ ৫৮ হাজার টাকা। এইচপি স্পেক্টরা সিরিজের নতুন ল্যাপটপগুলোর বিক্রয়মূল্য মডেলভেদে এক লাখ ২৯ হাজার টাকা থেকে শুরু।

প্যাভিলিয়ন সিরিজের নতুন ল্যাপটপগুলোর মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী কনফিগারেশন রয়েছে প্যাভিলিয়ন ১৫-সিইউ ১০০৪ টিএক্স মডেলটিতে। ইন্টেল ৮ম জেনারেশন এর নতুন কোর আই সেভেন প্রসেসরযুক্ত এ ল্যাপটপে রয়েছে ৮ জিবি ডিডিআরফোর র‍্যাম, এএমডি রেডিয়ন ৫৩০ মডেলের ৪ জিবি গ্রাফিক্স কার্ড, ১৫ দশমিক ৬ ইঞ্চি ফুল এইচডি ডিসপ্লে, উইন্ডোজ ১০ অরিজিনাল অপারেটিং সিস্টেম এবং ১ টেরাবাইট হার্ডড্রাইভ। ২ বছরের বিক্রয়োত্তর সেবাসহ ল্যাপটপটির মূল্য ৭২ হাজার ৫০০ টাকা। ল্যাপটপটি নীল এবং সোনালি দুটি রঙে পাওয়া যাচ্ছে। তবে, এইচপি প্যাভিলিয়ন সিরিজের নতুন ল্যাপটপগুলোর বিক্রয়মূল্য মডেলভেদে ৫১ হাজার ৯০০ টাকা থেকে শুরু করে ৭২ হাজার ৫০০ টাকা পর্যন্ত।

এইচপি সিরিজের নতুন ল্যাপটপগুলোর মধ্যে সবচেয়ে এন্ট্রি লেভেলের মডেল এইচপি ১৫-ডিএ ০০১৫ টিইউ। ইন্টেল ৮ম জেনারেশন এর নতুন কোর আই থ্রি প্রসেসরযুক্ত এই ল্যাপটপে রয়েছে ৪ জিবি ডিডিআরফোর র‍্যাম, ১৪ ইঞ্চি ডিসপ্লে, উইন্ডোজ ১০ অরিজিনাল অপারেটিং সিস্টেম, ব্লুটুথ, ওয়াইফাই এবং ১ টেরাবাইট হার্ডড্রাইভ। ২ বছরের বিক্রয়োত্তর সেবাসহ ল্যাপটপটির মূল্য ৩৯ হাজার ৮০০ টাকা। এইচপি সিরিজের নতুন ল্যাপটপগুলোর মূল্য মডেলভেদে ৩৯ হাজার ৮০০ টাকা থেকে ৫১ হাজার ৩০০ টাকা পর্যন্ত। বাংলাদেশের বাজারে এইচপি ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ বিপণন করছে স্মার্ট টেকনোলজিস।

বিরামপুরে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস পালিত

জাকিরুল ইসলাম, বিরামপুর-”ডিজিটাল বাংলাদেশ হবে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে দিনাজপুর জেলার বিরামপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস-২০১৮ উপলক্ষে চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
১২ ডিসেম্বর সকাল ১১ঘটিকায় বিরামপুর উপজেলা কনফারেন্স রুমে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. তৌহিদুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান পারভেজ কবীর।
এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা কৃষি অফিসার নিকছন চন্দ্র পাল, শিক্ষা অফিসার নূরে আলম, বিরামপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ ফরহাদ হোসেন, সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রইস উদ্দিন, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানা, বিরামপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আরমান হোসেন,  শিক্ষক সমিতির সভাপতি ফারুক ই আজম, সাঃ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, বিরামপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি আকরাম হোসেন, উপজেলা পরিষদের কর্মকর্তাবৃন্দ ও সকল স্কুল ও মাদ্রাসার প্রধানগণ, ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার  সাংবাদিকবৃন্দ প্রমুখ।

দিনাজপুরে দু’দিনব্যাপী তথ্য মেলার উদ্বোধন

স্টাফ রির্পোটার, দিনাজপুর- সচেতন নাগরিক কমিটি-সনাক দিনাজপুরের আয়োজনে ও জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় আন্তর্জাতিক তথ্য জানার অধিকার-দিবস উপলক্ষে দিনাজপুরে দু’দিনব্যাপী তথ্য মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে দিনাজপুর ইনস্টিটিউট মাঠে মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক ড. আবু নাঈম মোহাম্মদ আব্দুছ ছবুর। এ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সচেতন নাগরিক কমিটি-সনাক দিনাজপুরের সভাপতি মো. সফিকুল হক ছুটু’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক ড. আবু নাঈম মোহাম্মদ আব্দুছ ছবুর।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, দিনাজপুরের পুলিশ সুপার সৈয়দ আবু সায়েম, দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. মোঃ আহাদ আলী, সনাকের সহ-সভাপতি আজাদী হাই ও শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন তথ্য মেলা উদযাপন কমিটির আহবায়ক এ্যাড. শৈলেন কান্তি রায়।

উল্লেখ্য, দু’দিনব্যাপী তথ্য মেলায় দিনাজপুর জেলা পুলিশ, দিনাজপুর ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স অফিস, দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতাল, দিনাজপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, দিনাজপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ দিনাজপুর অফিস, জেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ, জেলা শিক্ষা অফিসসহ সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের ৩৩টি স্টল অংশগ্রহণ করেছে।

১২ সেপ্টেম্বর বুধবার সরকারী সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা জনগণের মূখোমুখি হবেন। পরে মেলার সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।

সৌর বিদ্যুতে আলোকিত হাকিমপুরের গ্রামীণ জনপদ

মোসলেম উদ্দিন-গ্রামীণ মেঠো পথ। যেখানে বিদ্যুতের আলো পাওয়াটা ছিল স্বপ্নের। কিন্তু বর্তমানে দিন পাল্টেছে।

সোলারের আলোয় আলোকিত হচ্ছে গ্রামীণ জনপদ। দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছে গেছে বিদ্যুৎ। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ছোট বড় বাজারসহ গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে জ্বলছে সৌর বিদ্যুতের বাতি।

হাকিমপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সুত্রে জানা গেছে, ত্রাণ পুনর্বাসন ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার ও রক্ষণাবেক্ষণ কর্মসুচীর আওতায় সৌর বিদ্যুতে জ্বললে সড়ক বাতি।

২০১৬ সাল থেকে উপজেলার তিনটি ইউনিয়ন ও একটি পৌর এলাকার বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সোলার স্থাপন ও মেঠোপথে স্ট্রিট লাইট বসানোর কাজ শুরু হয়। গেল অর্থ বছর পর্যন্ত ইটকোল মনোনীত প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ২ কোটি ৪৩ হাজার ৮শ ২৭ টাকা ব্যয়ে এ উপজেলায় ২শ ৬৯ টি সোলার ও স্ট্রিট লাইট বসানো হয়েছে।

১ নং খট্রামাধবপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোকলেছার রহমান জানান, তার এলাকায় যেখানে মানুষের চলাচল রয়েছে-সেসব স্থানে সৌর প্যানেলের মাধ্যমে আলো পৌঁছানো হচ্ছে। ফলে এখন রাতের আঁধারে মানুষ নিরাপদে চলাচল করছে। রাস্তাগুলো আলোকিত হওয়ায় অপরাধ কমে এসেছে। রাত নামলেই আলোয় আলোকিত হচ্ছে গ্রামীণ জনপদ।

খট্রামাধবপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি এনামুল হক চৌধুরী দুলাল জানান, চলতি বছর ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে ডাঙ্গাপাড়া বাজারে স্ট্রিট লাইট বসানো হয়েছে। এতে পাল্টে গেছে বাজারের চিত্র। বিদ্যুৎ গেলেও কোন সমস্যা হয়না।

হাকিমপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সজীবুল করিম দৈনিক খোলা কাগজকে জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ ও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের লক্ষ্যে সারাদেশে গ্রামেগঞ্জে সৌর বিদ্যুতের প্রকল্প নেয়া হয়। তার অংশ হিসেবে হাকিমপুরেও ২০১৬ সাল থেকে প্রকল্পটির যাত্রা শুরু হয়।

সৌর বিদ্যুতের কারণে একদিকে বিদ্যুৎ সাশ্রয় হচ্ছে, অন্যদিকে গ্রামের মানুষ অন্ধকার থেকে আলোয় চলাচল করতে পারছে।

ধামইরহাটে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন

ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি- নওগাঁর ধামইরহাটে ২দিনব্যাপী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা উদ্বোধন করা হয়েছে।

রোববার সকাল ১০ টায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় এবং জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি যাদুঘরের তত্ত্বাবধানে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে মেলা উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়।

র‌্যালী শেষে উপজেলা ভূমি অফিস চত্বরে এক আলোচনা সভা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সফিউজ্জামান ভুইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো.দেলদার হোসেন, ধামইরহাট এম এম ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মো. শহীদুল ইসলাম,উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার কাজল কুমার সরকার, ইউপি চেয়ারম্যান মো. কামরুজ্জামান, প্রধান শিক্ষক অমল কুমার ঘোষ, প্রেসক্লাব সভাপতি এমএ মালেক প্রমুখ।

ইন্টারনেটের ওপর ভ্যাট কমাতে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে: মুহিত

আগামী বাজেটে দেশে তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশের সুযোগ সৃষ্টিতে ইন্টারনেটের ওপর আরোপিত ভ্যাট কমানোর বিষয়ে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে সফটওয়ার মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

অর্থমন্ত্রী বলেন, “মোস্তফা জব্বার যে প্রস্তাব করেছেন ভ্যাট সম্বন্ধে এবং সে ব্যাপারে আমি একটা ইতিবাচক সিদ্ধান্ত দেয়ার আশা করছি। সে কারণে আমার মনে হয় আপনাদের অসন্তুষ্ট হওয়ার কারণ নেই।”

গ্রাহকদের বিনামূল্যে মোবাইল ফোন ফোরজিতে রূপান্তর করতে সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতি আহ্বান জানান ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

থ্রিজি থেকে ফোরজিতে যাওয়ার জন্য যে সিম রিপ্লেসমেন্টটা হবে সেই করটা মওকুফ করতে সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

তিনি বলেন, “ আমরা এটুকু বলতে পারি মোবাইল সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো যেন আমাদের জনগণকে ফোরজি দেয়ার জন্য কোনো ধরনের কর আরোপ করতে সক্ষম না হয়।”

চার দিনব্যাপী এই সফটওয়ার মেলার আয়োজন করে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়ার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)। এতে শতাধিক সফটওয়ার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়।

ডিজিটাল পদ্ধতিতে পরিচালিত চকময়রাম মডেল বিদ্যালয় জেলার মধ্যে প্রথম

ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি-সম্পূর্ণ ডিজিটাল পদ্ধতিতে বিদ্যালয় পরিচালিত হওয়ার নওগাঁর ধামইরহাটের ঐতিহ্যবাহী চকময়রাম মডেল উচ্চ বিদ্যালয় জেলার মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করেছে।

নওগাঁর পিটিআই মাঠে ৩ দিনব্যাপী ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা ২০১৮ উপলক্ষে সমাপনী দিনে মাধ্যমিক বিদ্যালয়স্তরে ধামইরহাটের চকময়রাম মডেল উচ্চ বিদ্যালয় সম্পূর্ণ ডিজিটাল পদ্ধতিতে পলিচালিত ও বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সততা ষ্টোর কাজের সাথে জডিত থাকায় বিদ্যালয়টি এ কৃতিত্ব অর্জন করে।

বিকেলে ওই মাঠে সমাপনী দিনে চকময়রাম মডেল উচ্চ বিদ্যালনা কমিটির সভাপতি মো.আজাহার আলী মন্ডল ও প্রধান শিক্ষক খেলাল-ই-রব্বানীর হাতে সম্মামনা ক্রেস্ট তুলেদেন নওগাঁ সদর আসনের সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মো.আব্দুল মালেক।

এ সময় উপস্থিত জেলা প্রশাসক মো.মিজানুর রহমান,পুলিশ সুপার মো.ইকবাল হোসেন,নওগাঁ সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক এএইচএমএ ছালেক।

ডিজিটাল সেবা এখন জনগণের দোরগোড়ায়

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি-বর্তমান বিশ্ব্য তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর এক আধুনিক বিশ্ব্যে পরিণত হয়েছে। আমাদের চারপাশে যা আছে প্রত্যেক জিনিসের মধ্যে কোন না কোন ভাবে প্রযুক্তির ছোঁয়া লেগেছে।

তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে উন্নত দেশগুলোর মধ্যে বর্তমানে অমাদের দেশেও সমাজ ও রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থায় আমুল পরিবর্তন এনেছে। এই তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারের সঙ্গে বদলে যাচ্ছে মানুষের চিন্তা, চাহিদা, অভ্যাস, প্রবণতাসহ নানা কার্যক্রম।

দেশের সরকার প্রধান তথা সরকারের দায়িত্ব হচ্ছে জনগণের অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা ও চিকিৎসাসহ সকল মৌলিক চাহিদার সু-ব্যবস্থা করা। বর্তমান চলমান বিশ্ব্যের সাথে সাথে অমাদের দেশেও সরকারের এসব দায়িত্ব সফলভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির ব্যাপক ব্যবহার বেড়েছে।

বর্তমান সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি যথাযথ ব্যাবহারের মাধ্যমে সরকারের প্রতিটি সেক্টরের কাজের গতিশীলতা ও দক্ষতা বেড়েছে অনেক গুনবেশী।

সরকারি কর্মকান্ড সহজ ও স্বচ্ছ করতে, দ্রততার সাথে সিদ্ধান্ত প্রদান এবং অপ্রয়োজনীয় ব্যায় কমাতে যেমন তথ্য প্রযুক্তি প্রয়োজন। তেমনি গ্রামীন মানুষের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছানোর জন্য সরকারের গৃহীত নানামুখী পদক্ষেপের মধ্যে অন্যতম হয়ে উঠেছে ইউনিয়ন তথ্য ও সেবাকেন্দ্র।

সরকারী এক সুত্রে জানাগেছে গত ২০০৭ সালে পাইলট আকারে দেশের ২টি ইউনিয়ন পরিষদে কমিউনিটি ই-সেন্টার (সিইসি) স্থাপন করা হয়।

এরপর এ দু’টি সিইসি’র অভিজ্ঞতার আলোকে ২০০৮ সালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রামের সহায়তায় স্থানীয় সরকার বিভাগ দেশের ৩০টি ইউনিয়নে সিইসি স্থাপন করে। ২০০৯ সালে ১ হাজার ইউনিয়ন পরিষদে ইউনিয়ন তথ্য ও সেবাকেন্দ্র (ইউআইএসসি) স্থাপিত করা হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় ২০১০ সালের ১১ নভেম্বর বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারা দেশের ৪ হাজার ৫০১টি ইউনিয়ন পরিষদে একটি করে ইউনিয়ন তথ্য ও সেবাকেন্দ্র (ইউআইএসসি) একযোগে উদ্বোধন করেন।

পরবর্তীতে সারাদেশে ৪ হাজার ৫১৬টি (ইউআইএসসি) স্থাপন করা হয়। দেশের সকল ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্র স্থাপনের উদ্দেশ্য হল, ইউনিয়ন পরিষদকে একটি তথ্য ও জ্ঞান-ভিত্তিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করা, যাতে এই সেবা প্রতিষ্ঠান ২০২১ সালের মধ্যে একটি তথ্য ও জ্ঞান-ভিত্তিক দেশ প্রতিষ্ঠায় যথাযথ ভূমিকা রাখতে পারে।

গতকাল সোমবার দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার বেতদিঘী ইউনিয়নের রাধিকাপুর গ্রামের ময়েজ উদ্দিনের স্ত্রী, ছেলের বউ ও ছোট্ট নাতিকে নিয়ে ইউনিয়ন তথ্য ও সেবাকেন্দ্রে যাওয়ার পথে ঐ গ্রামের কৃষক জয়নালের মুখোমুখি হলে উৎফ্ল্লু চিত্তে তিনি বলেন, ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্রে যাচ্ছি, ছেলে বিদেশ থাকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে কম্পিউটারে কথা বলবো সে আমাদের সবাইকে দেখবে, আমরাও ছেলেকে দেখবো।

জয়নাল জানান, সেও তথ্যসেবা কেন্দ্রে যাচ্ছে জমির একটা পর্চা তোলার জন্য একমাস আগে আবেদন করেছিলো। সেটা এসেছে বলে ডিজিটাল কল সেন্টার থেকে মোবাইল করেছিল। সে জন্য তারা সকলে এক সাথে ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্রে যাচ্ছেন।

বেতদিঘী ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্র (ইউআইএসসি)’র উদ্যোক্তা রতন মার্ডী ও খয়েরবাড়ী ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্র (ইউআইএসসি)’র উদ্যোক্তা তরিকুল ইসলাম বলেন, এলাকার মানুষকে গ্রামে বসেই বিভিন্ন ভাবে সেবা দিতে পেরে আমি অত্যন্ত খুশী। ইউনিয়নের মানুষও আমার উপর খুশী। এখানকার সেবার সব রকম কার্যক্রম আমি অব্যাহত রাখবো।

তিনি আরো বলেন, ইউআইএসসি’র সরকারি সেবা সমুহের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে জমির পর্চার আবেদন, জন্ম নিবন্ধন, মৃত্যু নিবন্ধন, নাগরিক সনদ, সকল প্রকার নাগরিক আবেদন, পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল, অনলাইনে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি, অনলাইনে পাসর্পোর্টের আবেদন, ভিসা ভেরিফিকেশন ও ট্র্যাকিং, অনলাইনে ড্রাইভিং লাইসেন্স এর আবেদন ও নবায়ন, অনলাইন সরকারি টেন্ডার আবেদন, সরকারি ফরম ডাউনলোড, জীবনবীমা, টেলিমেডিসিন, মোবাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য পরামর্শ, মোবাইলে কৃষি পরামর্শ, আইনী সহায়তা, বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ, ই-পূর্জি, মাটি পরীক্ষা, আর্সেনিক পরীক্ষা বিভিন্ন সরকারি ডকুমেন্ট প্রণয়নসহ সরকারি বিভিন্ন প্রচারণা কাজে এর গুরুত্ব অনেক।

অন্যদিকে বেসরকারি সেবা সমূহের মধ্যে উল্যেখযোগ্য হচ্ছে, ই-মেইল, ইন্টারনেট ব্রাউজিং, কম্পিউটার প্রশিক্ষণ, মোবাইল ব্যাংকিং ( ডাচ বাংলা, বিকাশ লিমিটেড, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, ট্রাস্ট ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক), মোবাইল মেরামত, মোবাইলে টাকা লোড, দেশ-বিদেশে টেলিফোন, ভিডিও কনফারেন্সিং, ছবি তোলা, চাকুরি বিজ্ঞপ্তি দেখা ও অনলাইনে আবেদন, সামাজিক অনুষ্ঠানের ভিডিও রেকর্ডিং ও এডিটিং, সোলার সিস্টেম ম্যানেজম্যান্ট, কম্পোজ ও প্রিন্ট, স্ক্যান, ফটোকপি, ইত্যাদী। একই কথা বলেন বেতদিঘী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও উপাধক্ষ্য শাহ্ আব্দুল কুদ্দুষ।

ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুস সালাম চৌধুরী বলেন, গ্রামীণ মানুষের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছানোর লক্ষ্যে সরকার ইউনিয়ন তথ্য ও সেবাকেন্দ্র গঠন করেছেন।

এর মূল উদ্যেশ্য হলো নানামুখী নাগরিক সেবা জনগণ যেন গ্রামে বসেই সহজে পেতে পারেন। সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে ফুলবাড়ী উপজেলা পরিষদসহ মোট ৮টি ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্র (ইউআইএসসি) রয়েছে যা ক্রমেই গ্রামীণ জনগনের সেবা গ্রহণের কেন্দ্র বিন্দুতে পরিণত হয়েছে।

টেকনিটি কম্পিউটার সেলস্ এন্ড ট্রেনিং সেন্টার উদ্বোধন

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি-দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে টেকনিটি কম্পিউটার সেলস্ এন্ড ট্রেনিং সেন্টার উদ্বোধন করা হয়েছে।

পৌর এলাকার নিমতলামোড় সৌদিয়া মার্কেটে ২য়তলায় টেকনিটি কম্পিউটার সেলস্ এন্ড ট্রেনিং সেন্টার এর শুভ উদ্বোধন করেন, দিনাজপুর জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ্ব কামরুজ্জামান (কামরু)।

টেকনিটি কম্পিউটার সেলস্ এন্ড ট্রেনিং সেন্টার এর ব্যাবস্থাপনা পরিচালক সাবেক সেনা কর্মকর্তা মো: বিপ্লব চৌধুরী এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ্ব কামরুজ্জামান (কামরু)।

এতে বিষেশ অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা ভাইস চেয়াম্যান মঞ্জুরুল কাদির, প্রভাষক খাইরুল আলম, আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন,ব্যাবসায়ী শাহাদৎ হোসেন।

এ সময় টেকনিটি কম্পিউটার সেলস্ এন্ড ট্রেনিং সেন্টার এর প্রশিক্ষক সুজন হোসেনসহ প্রতিষ্ঠানের সকল কর্মকর্তা ও সুধিজন উপস্থিত ছিলেন। শেষে প্রতিষ্ঠানের উত্তরাত্তর সাফল্য কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।