বুধবার-১৩ নভেম্বর ২০১৯- সময়: রাত ১২:৫০
ঘোড়াঘাটে বানিজ্যিক ভাবে মাল্টা বাগান করে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে নাটোরের প্রতিবন্ধি প্রবীণ দম্পত্তি ভাতা নয়, চায় মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি নবাবগঞ্জে ইঁদুর কেটে ফেলছে কাঁচা আমন ধানের রোপা উৎপাদন ব্যাহত হওয়ার আশংকা কমেছে সময় ও দুর্ঘটনা,ঝালকাঠিতে ১৪ কি.মি মহাসড়ক নির্মাণ, স্বস্তিতে দক্ষিন-পশ্চিমাঞ্চলের যাত্রীরা রাজাপুরে ব্যক্তি উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের জন্য ব্রীজ নির্মান, বই ও বেঞ্চ প্রদান মুক্তিযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ প্রসঞ্জী রায়এর পাশে- এমপি গোপাল ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষে হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল হাসপাতালে লাইভ ওয়ার্কশপে বাংলাদেশে সবচেয়ে বড় রিং (স্টেন্ট) সফল প্রতিস্থাপন সম্পন্ন ধামইরহাটে তিন ভূয়া ডিবি পুলিশ আটক সম্মানি না পেয়ে চিকিৎসা দিতে এলেন হারবাল এ্যাসিস্টেন্ট!

অপরাধ newsdiarybd.com:

বিয়ের কাগজ নিয়ে তালবাহানা, কারাগারে কাজী!

মো.মাহাবুর রহমান-দিনাজপুরের বিরামপুরে মফেজ উদ্দিন নামের এক কাজীর বিরুদ্ধে বিয়ে নিয়ে প্রতারণার অভিযোগে উঠেছে। এই ঘটনায় ভূক্তভোগী সৈয়দ রাশেদুজ্জামান (২৬) নামের এক ব্যক্তি ওই কাজির বিরুদ্ধে থানায় এজাহার দাখিল করেছেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে কাজী মফেজ উদ্দিনকে গ্রেফতার করে দিনাজপুর কারাগারে পাঠিয়েছেন।

গ্রেফতার কৃত কাজী মফেজ উদ্দিন সরকার উপজেলার জোতবানি ইউনিয়নের কেটরাপাড়া গ্রামের ফয়েজ উদ্দিন সরকারের ছেলে। বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো.মনিরুজ্জামান মনির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

থানার এজাহার সূত্রে জানাযায়, বিরামপুর উপজেলার বিনাইল ইউনিয়নের অচিন্তপুর গ্রামের সৈয়দ পয়গম্বর আলীর ছেলে সৈয়দ রাশেদুজ্জামান (২৬) চাপড়া গ্রামের লুৎফর রহমানের মেয়ে শিরিনাকে (২৪) গত ২৯ সেপ্টেম্বর জোতবানী ইউনিয়নের কাজী মফেজ উদ্দিন সরকার এর কাজী অফিসে বিয়ে করেন। বিয়ের সময় কাজী মফেজ উদ্দিন ৫ হাজার টাকা নিলেও বিয়ে রেজিষ্ট্রির কোন কাগজ দেন নাই।

রাশেদুজ্জামান জানান, বিয়ের কাগজ পত্রের বিষয়ে কাজী মফেজ উদ্দিনের নিকট বহুবার যোগাযোগ করেও তিনি কোন কাগজ দেন নাই। পরে অবশেষে ঐ কাজী বিয়ে রেজিষ্ট্রির কাগজ দিতে দশ হাজার টাকা দাবি করেন।

বিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো.মনিরুজ্জামান জানান, অতিরিক্ত টাকা দাবি ও রেজিষ্ট্রির কাগজ না পেয়ে রাশেদুজ্জামান বৃহস্পতিবার (৭ নভেঃ) বিরামপুর থানায় মামলা করেছেন। পুলিশ কাজী মফেজ উদ্দিনকে আটক করে দিনাজপুর কারাগারে পাঠিয়েছে।

ফুলবাড়ী সীমান্তে বিজিবি’র সাহসীকতায় ডাকাতির চেষ্টা ব্যর্থ॥

মোঃ আফজাল হোসেন-ফুলবাড়ী উপজেলার এলুয়াড়ী ইউপির রাধা কৃষ্ণপুর গ্রামে বিজিবি’র সাহসীকতায় ডাকাতদের ডাকাতি চেষ্ঠা ব্যর্থ হয় । অবশেষে বিজিবি’র তাড়া খেয়ে পালিয়ে যায়।

ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি’র অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ শরীফ উল্লা আবেদ (এসজিপি) গত রবিবার দিবাগত রাত্রিতে গোপন সূত্রে সংবাদ পেলে ২৯ বিজিবি’র আওতায় রুদ্রানী ক্যাম্পে কমান্ডার সুবেদার মোঃ বাদসা মিয়া মিয়াকে সঙ্গে নিয়ে ঐ দিন রাতে দ্রুত এলায়াড়ী ইউপির রাধা কৃষ্ণপুর গ্রামের শফিকুল সরকারের দুগ্ধজাত খামার বাড়ীতে সংঘবদ্ধ ডাকাত দল ডাকাতি করার চেষ্ঠা করলে বিজিবি’র ঘটনা স্থলে গিয়ে হ্যান্ড মাাইকে ডাকাত দলকে অস্ত্র ফেলে দিয়ে অত্মসমার্পন করার নিদের্শ দেন। ডাকাত দল এ সময় অবস্থা বেগতিক দেখে তারা পালিয়ে যায়।

জানা যায় এলুয়াড়ী ইউপির রাধার কৃষ্ণপুর গ্রামে সফিকুল সরকারের দুগ্ধ খামারে প্র্য়া ২ কোটি টাকার গবাদি পশু ছিল। এই ঘটনায় এলুয়াড়ী ইউপির সচেতন মানুষ ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি’র অধিনায়ক অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ শরীফ উল্লা আবেদ (এসজিপি) সাহসীকতাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

তিনি ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি’র দায়িত্ব ভার পওয়ার পর সীমান্তের ৮১ কিলোমিটার এলাকায় চোরাচালান, নারী ও শিশু পাচার, সীমান্তে হত্যা সহ নানা রকম কার্যক্রম বন্ধ করেছেন। এছাড়া সীমান্তে বসবানকারী এলাকার মানুষকে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে কাজ করে চলেছেন।

নওগাঁয় ধামইরহাটে স্ত্রী হত্যাকারী স্বামী গ্রেফতার

ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি- নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার রামরামপুর (তেলীপাড়া) গ্রামে নিজ স্ত্রীকে হাসুয়া দিয়ে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় একমাত্র পলাতক আসামী ওই গৃহবধুর স্বামী নূর মোহাম্মদ (৪০) কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৫।

গত মঙ্গলবার দিনগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে র‌্যাব-৫, জয়পুরহাট ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার সহকারী পুলিশ সুপার একেএম, এনামুল করিমের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিশেষ অভিযান চালিয়ে নওগাঁ জেলার বদলগাছি উপজেলার মিঠাপুর পালপাড়া এলাকা থেতে তাকে গ্রেফতার করে। পরে তাকে ধামইরহাট থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা র‌্যাব।

এব্যাপারে ধামইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো.জাকিরুল ইসলাম বলেন,আসামী নুর মোহম্মদ নওগাঁর আমলী আদালত-৯ এর বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৬৪ ধারায় হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার রাতে ঘাতক মোঃ নুর মোহাম্মদ (৪০) তার স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন (৩৪) কে হত্যা করে পালিয়ে যায়। সে ওই গ্রামের ওয়াজেদ আলীর পুত্র।

হিলি সীমান্তে ফেন্সিডিলসহ মহিলা আটক

মোসলেম উদ্দিন,হিলি-দিনাজপুরের হিলি সীমান্তে ১৪০ বোতল ফেন্সিডিলসহ এক জন মহিলা মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

আটককৃত মহিলা হিলি-হাকিমপুর উপজেলার নওপাড়া গ্রামের এরশাদের স্ত্রী জান্নাতুন ফেরদৌস (২২)।

আটককৃত জান্নাতুন ফেরদৌসকে বুধবার (২৪ জুলাই) দুপুরে প্রচলিত মাদক দ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করে দিনাজপুর জেল-হাজতে পাঠিয়েছে বলে জানিয়েছেন হাকিমপুর থানা অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন।

তিনি আরো জানান,মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই রাকিব হোসেন (উপ-পরিদর্শক) সঙ্গী ফোর্স নিয়ে উপজেলার নওপাড়া গ্রামের এরশাদের বাড়িতে অভিযান চালায়।

অভিযান চালিয়ে খড়ের পালায় লুকানো একটি স্কুল ব্যাগে ৫০ বোতল ও বাহিরে ৯০ বোতল ফেন্সিডিলসহ তার স্ত্রী জান্নাতুনকে আটক করে। তার বাড়িতে ফেন্সিডিল বহন করা ১৫০০ সিসি মোটরসাইকেলও জব্দ করা হয়েছে।

ধামইরহাটে মারপিট করে লক্ষাধিক টাকা লুট করেছে দুর্বৃত্তরা

ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি-নওগাঁর ধামইরহাটে দিনের বেলা মারপিট করে লক্ষাধিক টাকা লুট করেছে দুর্বৃত্তরা। বাড়ীর গৃহকর্তার মুখে কাপড় গুজে বেধড় পিটিয়ে গরু ব্যবসার প্রায় লক্ষাধিক টাকা লুট করেছে। সুবিচারের আশায় গৃহকর্তা আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী বাদী হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।

ধামইরহাট থানায় অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে,উপজেলার জাহানপুর ইউনিয়নের অন্তর্গত কোকিল আবুল মাস্টারপাড়া গ্রামের আনোয়ার হোসেনের সাথে জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধ ছিল একই গ্রামের আব্দুল আজিজ এর সাথে। এর জের ধরে গত রবিবার বিকেল আনুমানিক সাড়ে ৫টার দিকে আজিজ গংরা আনোয়ার হোসেনের বাড়ীতে প্রবেশ করে তাকে একা পেয়ে এলোপাথাড়ী মারপিট করে। আনোয়ার হোসেনের পিটে অসংখ্য আঘাত ও তার স্ত্রী মুক্তা বেগমের মাথায় আঘাতের চিহৃ রয়েছে।

বর্তমানে আনোয়ার হোসেন ও তার স্ত্রী মুক্তা বেগম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে। এব্যাপারে আনোয়ার হোসেন বলেন,আমার প্রতিবেশী আব্দুল আজিজ গংদের সাথে আমার দখলীয় ২ একর মাঠের জমি নিয়ে গত ৫/৬ বছর ধরে বিরোধ চলছে।

বিয়ষটি স্থানীয় জাহানপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছে বিচার দেয়া হলেও চেয়ারম্যানের বিচার মানেনি আজিজ গং। ওইদিন আব্দুল আজিজ ও তার ছেলে আলিম,সালাম,সাত্তার তার মেয়ে জামাই জিল্লুর ও মফিজুল ইসলাম বিকেলে আকস্মিক আমার বাড়ীতে প্রবেশ করে মুখে কাপড় দিয়ে মুখ বন্ধ করে মাটিতে ফেলে উপুর করে লাঠি দিয়ে পিটে এবং হাতে মারপিট করতে থাকে।

এ সময় বাড়ীতে কেউ ছিলনা। পরবর্তীতে আমার স্ত্রী মুক্তা বেগম (২৮) বিষয়টি জানতে পেয়ে আমাকে বাঁচার জন্য বাড়ীতে এলে তাকেও মাথাসহ বিভিন্ন জায়গায় আঘাত করে। দুর্বৃত্তরা এ সময় আমার স্ত্রীর প্রায় ৫০ হাজার টাকার সোনার গহনা ও গরু ব্যবসার নগদ ১লক্ষ ৫ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়।

এব্যাপারে জাহানপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো.ওসমান আলী বলেন,জমিজমা সংক্রান্ত বিষয়ে আমি দুই পক্ষকে নিয়ে বৈঠক করেছি। আনোয়ার হোসেনের কাগজপত্র সঠিক রয়েছে। তারপরও আব্দুল আজিজ গংরা গায়ের জোরে আনোয়ার হোসেনে দখলীয় জমি দখল করতে চায়।

এব্যাপারে ধামইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো.জাকিরুল ইসলাম বলেন, দুই্ পক্ষ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। উভয় পক্ষকে ডেকে বিষয়টি মিমাংসার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

বিরামপুরে শিশুকে গলা কেটে হত্যা: তিন আসামী রিমান্ডে

বিরামপুর(দিনাজপুর) সংবাদদাতা-দিনাজপুরের বিরামপুরে ঘুমন্ত বাবা-মা’র পাশ থেকে শিশু আশিক রানা হৃদয়কে অপহরণ করে নির্মমভাবে গলাকেটে হত্যার ঘটনায় আটক তিন আসামিকে দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন দিনাজপুর আমলী আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট।

বুধবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বিরামপুর থানার ওসি (তদন্ত) সোহেল রানা ওই তিন আসামিকে আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। শুনানী শেষে আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আনজুম আরা বেগম তিন আসামীর ২দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ডের আসামিরা হলেন, শিশুটির সৎ মা রোজিনা খাতুন ও রোজিনার দ্বিতীয় স্বামী আকরামুল ইসলাম ও রোজিনার ভাই পিয়ারুল ইসলাম।

উল্লেখ্য, গত ২৯ জুন শনিবার রাতে বাবা শাহিনুর ইসলাম ও মা রোজিনা আকতারের সাথে দুই বছর আট মাস বয়সি শিশু আশিক রানা হৃদয় ঘুমিয়ে পড়ে। রাত ৩ টার দিকে বিছানায় শিশু সন্তান হৃদয়কে না পেয়ে বাবা-মা চিৎকার করেন। সকালে বাড়ির পাশে পাট ক্ষেত থেকে ওই শিশুটির ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার করা হয়।

বিরামপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, ওই দিন নিহত শিশুটির মা রোজিনা আকতার বাদি হয়ে ৩ জনের নাম উল্লেখ এবং ৬ জনকে অজ্ঞাত করে একটি মামলা দায়ের করে। পুলিশ ওই রাতেই তিন আসামীকে আটক করে।

বিরামপুরে শিশুকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় তিন জন আটক

ষ্টাফ রিপোর্টার-বিরামপুর উপজেলার গোপালপুর গ্রামে গভীর রাতে বাবা-মায়ের মাঝ থেকে ২ বছর আট মাস বয়সের শিশু পুত্রকে তুলে নিয়ে জবাই করে হত্যার ঘটনায় তিন অভিযুক্তকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

নিহত শিশুর পিতা আকতারুজ্জামান শাহীন জানান, শুক্রবার দিবাগত রাতে তার স্ত্রী রোজিনা আকতারসহ দুই বছর আট মাস বয়সের শিশুপুত্র আশিক রানাকে নিয়ে তারা ঘুমিয়ে পড়েন। গরমের কারণে ঘরের দরজা খোলা রাখেন।

গভীর রাতে স্বামী-স্ত্রীর মাঝখান থেকে কে বা কারা শিশু পুত্র আশিককে একটি মোবাইল ফোনসহ তুলে নিয়ে যায়। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে শনিবার সকালে বাড়ির পাশে পাট ক্ষেতে শিশুর জবাই করা লাশ দেখতে পায়। দুর্বুত্তরা লাশ থেকে শিশুটির দুই হাত কেটে নিয়ে গেছে। এ ঘটনায় থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) সোহেল রানা জানান, হত্যা মামলার এজাহার নামীয় আসামী মৃত শিশুর সৎমা রোজিনা বেগম, রোজিনার দ্বিতীয় স্বামী আকরামুল ইসলাম, রোজিনার ভাই পিয়ারুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রিমা- আবেদনসহ তাদেরকে দিনাজপুর আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। অন্যান্য আসামীদের ধরার চেষ্টা চলছে।

বিরামপুরে শিশুর গলাকাটা লাশ উদ্ধার

আকরাম হোসেন,বিরামপুর-দিনাজপুরের বিরামপুরে মুক্তিপন না পেয়ে এক শিশুকে নৃসংশ ভাবে হত্যা করে লাশ ক্ষত বিক্ষত করেছে নরপশু হত্যা কারীরা।

আজ বিরামপুর উপজেলার বিনাইল ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও পারিবাকি সুত্রে জানা যায় প্রতিদিনের ন্যায় শিশু আশিক রানাকে নিয়ে তার বা মা ঘুমিয়ে পড়ে কিন্তু রাত আনুমানিক রাত সাড়ে ৩টার দিকে দেখতে পায় তাদের সন্তান পাশে নেই।

খোজাখুজির এক পর্যায়ে নিহত শিশুর মামীর কাছে ফোনের মাধ্যমে ২ লক্ষ টাকা মুক্তিপন দাবী করে। তিনি শিশুর কথা জিজ্ঞাসা করলে তারা বলে সে ঘুমিয়ে আছে। টাকা দিলে তাকে ফেরত দিব। কিন্তু ঠিকানা গোপন রাখে।

পরে আনুমানিক সকাল ৮টার দিকে পাশ্ববর্তী পাট ক্ষেতে শিশুর ক্ষত বিক্ষত লাশ দেখতে পায় এলাকাবাসী। ঘটনা খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনা স্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এ ব্যাপারে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 

নবাবগঞ্জে প্রতিপক্ষের আঘাতে কাঠ ব্যবসায়ী নিহত

বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি-দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে বসতবাড়ীর পানি নিস্কাশনের নালা তৈরী করাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে জামাল উদ্দিন (৫৫) নামক এক কাঠ ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।

সে উপজেলার ৩নং গোলাপগঞ্জ ইউনিয়নের হরিপুর (সোনাজুড়ী) গ্রামের মৃত আঃ রহমানের পুত্র।

নিহতের পুত্র শাহিদুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার রাতে তার প্রতিবেশী ও ফুফু সোনা বানুর খুলিয়ানের পানি নিস্কাশনের নালা করা কালে একই গ্রামের ইছার উদ্দিন তার লোকজন নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে সোনা বানু ও তার দুই ছেলে রহিজাল ও মকবুল হোসেনকে গুরুতর জখম করে।

এ সময় নিহত জামাল উদ্দিন তার বাড়ীর সামনে অবস্থান করা কালে ইছার উদ্দিন ও তার লোকজন ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে জামালকে গুরুতর জখম করে। পরে আহতদের হাসপাতালে আনলে চিকিৎসক জামালকে মৃত্যু ঘোষনা করে।

নবাবগঞ্জ থানার ওসি সুব্রত কুমার সরকার জানান- এ ঘটনায় পুলিশ ৩জনকে আটক করেছে এবং থানায় মামলা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বিরামপুরে আম বাগানে গাঁজার চাষ : আটক-১

বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি-দিনাজপুরের বিরামপুরে আনোয়ার হোসেন টিটুর ইজারা নেয়া আম বাগান থেকে বিপুল পরিমাণ গাঁজার গাছ জব্দসহ একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃত যুবক পার্শ্ববর্তী নবাবগঞ্জ উপজেলার পুটিমারা ইউনিয়নের লোকা গ্রামের মৃত হবিবর রহমানের ছেলে কাসেম (৪০)।

বিরামপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, সোমবার সন্ধ্যায় সার্কেল এএসপি মিথুন সরকারের নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্সসহ পৌর শহরের মিরপুর নামক স্থানে আনোয়ার হোসেন টিটুর ইজারা নেয়া আম বাগানে গাঁজার চাষাবাদ হয় এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৮৮ পিস (২০০ কেজি) গাঁজার গাছ জব্দসহ বাগানের কেয়ারটেকার কাসেমকে (৪০) আটক করা হয়।

বিরামপুর সার্কেল এএসপি মিথুন সরকার জানান, এ ঘটনায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের এবং গাঁজা চাষাবাদে জড়িত সকলকে আইনের আওতায় আনা হবে। তিনি আরো জানান, আটককৃত আসামি মংলা কাসেমকে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় দিনাজপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে।