বৃহস্পতিবার-২১ নভেম্বর ২০১৯- সময়: রাত ১:২৫
বিরামপুরে অসহায় ও দরিদ্রদের বিনামূল্যে চোখের অপারেশন বিরামপুরে সাংবাদিকের বাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় আটক-১ ৭ কেজি চালের মূল্যে মিলছে ১কেজি পেয়াজ বিরামপুরের বাজারে চিকিৎসা সেবা দিয়ে মানব সেবা করতে চাই-পর্যটন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব হুমায়ুন কবীর বিরামপুরে নেশার ইনজেকশন ও ফেন্সিডিলসহ আটক-৩ হিলি চেকপোস্টে বিজিবি’র গোয়েন্দা সদস্যের বিরুদ্ধে সাংবাদিককে হয়রাণীর অভিযোগ বিরামপুরে বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস পালিত বিরামপুরে প্রকল্প সমাপনী কর্মশালা গরীব ও অসহায় মানুষকে চিকিৎসা সেবা দিতে পারলে আমি শান্তি পাই জনবল ও সরঞ্জামের অভাবে আজও চালু হয়নি, নবাবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস স্টেশন

বরিশাল newsdiarybd.com:

কমেছে সময় ও দুর্ঘটনা,ঝালকাঠিতে ১৪ কি.মি মহাসড়ক নির্মাণ, স্বস্তিতে দক্ষিন-পশ্চিমাঞ্চলের যাত্রীরা

ঝালকাঠি প্রতিনিধি-ঝালকাঠির আঞ্চলিক মহাসড়কের ১৪ কিলোমিটার অংশ উন্নত প্রযুক্তি আর মানসম্পন্ন কাঁচামাল ব্যবহারের এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। এটি অন্তত পাঁচ বছর অক্ষত থাকার নিশ্চয়তা দিচ্ছেন ঠিকাদার ও প্রকৌশলীরা। যদিও নির্মাণের পর বছর না পেরোতেই দেশে বেশিরভাগ সড়কে উঠে যায় বিটুমিন।

হালকা বৃষ্টিতে তৈরি হয় খানাখন্দ। এক বছর আগেও বরিশাল-ঝালকাঠি আঞ্চলিক মহাসড়কেরএই ১৪ কিলোমিটার ছিলো দুর্ভোগের আরেক নাম। মাঝপথে যানবাহন অচল, দুর্ঘটনা ছিলো প্রতিদিনের আতংক। এইটুকু পথ যেতেই লাগতো ঘণ্টার পর ঘণ্টা।

সরকারের টেকসই উন্নয়ন কাজের অংশ হিসেবে নতুন করে এই ১৪ কিলোমিটার অংশ তৈরি করেছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ। এতে যাত্রার সময় কমে এসেছে কয়েক মিনিটে। ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই সড়কে ব্যবহার ব্যবহার করা হয়েছে উন্নত প্রযুক্তি ও কাঁচামাল। নিশ্চিত করা হয়েছে ৬০ থেকে ৭০ গ্রেডের বিটুমিন ও এলসি পাথরের ব্যবহার।

জানা গেছে, ১৮ ফুট প্রশস্ত সড়কটি এখন ২৪ ফুটে পরিণত হয়েছে। ‘গুরুত্বপূর্ণ আঞ্চলিক মহাসড়ক প্রকল্প বরিশাল জোন’ এর আওতায় নির্মাণ কাজ শুরু হয় ২০১৮ সালের মার্চ মাসে।

আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে সড়কের কাজ শেষ হবার কথা থাকলেও দু’মাস আগেই এর নির্মান কাজ শেষ হয়েছে। সড়কটি নির্মাণে উন্নত মানের কাঁচামাল ব্যবহার করা হয়েছে। সড়কটির প্রশস্ততা কম থাকায় আগে দু’টি গাড়ী পাশাপাশি অতিক্রম করতে সমস্যার সৃষ্টি হত।

তাছাড়া খানা-খন্দকে পরিপূণ থাকায় প্রাই ঘটত দুর্ঘটনা। এসব বিষয়ের দিকে খেয়াল রেখে সড়কটি ১৮ ফুট থেকে বাড়িয়ে ২৪ ফুট প্রশস্ত করা হয়েছে। উন্নত প্রযুক্তি সম্পন্ন যন্ত্রপাতি দিয়ে নির্মাণের ফলে সড়কটি অধিক টেকসই এবং মসৃণ হয়েছে। এর ফলে কমেছে যাতায়াতের সময় এবং দুর্ভোগ।

সড়কে যাতায়াতকারী যানবহন চালক ও যাত্রীরা জানান, ভাঙ্গাচোর রাস্তার কারণে ঝালকাঠি থেকে বিভাগীয় শহর বরিশাল যেতে তাদের আগে ভোগান্তি পোহতে হত। বর্তমানে সড়কটি সংস্কার ও চওড়া হওয়ায় দ্রুত এবং স্বাচ্ছন্দে চলাচলা করতে পারছেন।

এ ব্যাপারে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এম.খান লিমটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মাহফুজ খান জানান, এই সড়কটি নির্মাণের ক্ষেত্রে আমরা বিশ্বের উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করেছি। এলসি পাথর দ্বারা নির্মিত সড়কটিতে ৬০ থেকে ৭০ গ্রেডের বিটুমিন ব্যবহার করা হয়েছে। এর ফলে এ সড়কটি আগামী ৫ বছরের মধ্যে কোন ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

ঝালকাঠি সড়ক বিভাগের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী শেখ নাবিল হোসেন জানান, নিয়মিত উপস্থিত থেকে সড়টির কাজ তদারকি করেছি। যেখানে মেটারিয়ালস মিক্সিং হয় সেই প্লান্টেও সার্বক্ষণিক আমাদের লোক উপস্থিত ছিলো।

রাজাপুরে ব্যক্তি উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের জন্য ব্রীজ নির্মান, বই ও বেঞ্চ প্রদান

ঝালকাঠি প্রতিনিধি-ঝালকাঠি জেলা আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগের সভাপতি ও রাজাপুর উপজেলা যুবলীগেরসহ সভাপতি মঠবাড়ি ইউনিয়নের সমাজসেবক দানশীল প্রবাসী মোঃ আব্দুর রব হাওলাদারের আর্থিক সহযোগীতায় শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের মঠবাড়ি স্কুলের সামনের খালের উপরে ব্রীজ নির্মান করেছেন।

শিক্ষার্থীদের কষ্টের কথা চিন্তা করে স্ব-প্রনোদিত হয়ে ওই ব্রীজ নির্মানে ব্যক্তি উদ্যোগ নেয়া হয়। ফলে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকসহ এলাকাবাসীর চলাচলে দীর্ঘদিনের দুর্ভোগ লাগব হয়েছে। ব্রীজ নির্মানের উদ্যোগে সাধুবাদ জানিয়ে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তারা।

এ ছাড়া সমাজসেবক মোঃ আব্দুর রব হাওলাদারের আর্থিক সহায়তায় এবং উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি মোঃ সবুর হাওলাদারের সার্বিক তত্ত্বাবধানে বাদুরতলা দাখিল মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীদের বসার বেঞ্চ তৈরিতে সহায়তা করা হয়েছে এবং হাইলাকাঠি ডহরশঙ্কর দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রতি বছর গাইড বই বিতরন করা হয়।

জানতে চাইলে মঠবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা উপজেলা আ’লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শফিকুর রহমান ডেজলিং তালুকদার জানান, সমাজসেবক আব্দুর রব হাওলাদার মঠবাড়ি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার গরীর ও অসহায় মানুষকে চিকিৎসাসহ বিভিন্ন আর্থিক সহায়তা, মসজিদ উন্নয়ন ও মাহফিলে দান করে যাচ্ছেন ।

আব্দুর রব হাওলাদার জানান, এলাকার উন্নয়নে এবং এলাকার মানুষের কল্যানে নিজের সাধ্যমত কাজ করে যাচ্ছি। সকলের সহযোগীতা পেলে এলাকার এ উন্নয়ন অব্যাহত থাকবে এবং গরীব অসহায় মানুষের পাশে থেকে তাদের সহযোগীতা করে যাবেন। তিনি সকলের সহযোগীতা ও দোয়া কামনা করেছেন।

ঝালকাঠিতে ছেলেধরা গুজব রোধে মাইকিং সভা

রহিম রেজা, ঝালকাঠি প্রতিনিধি-ছেলেধরা গুজবে বিভ্রান্ত না হতে ঝালকাঠিতে সচেতনতামূলক কর্মসূচি পালন করেছে জেলা পুলিশ।

মঙ্গলবার বিকালে শহরের বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ কর্মসূচি পালন করা হয়। পদ্মাসেতুতে মানুষের মাথা ও রক্ত লাগবে, এটি সম্পূর্ণ গুজব। এ ধরনের গুজবে কান না দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয় কর্মসূচি থেকে। ছেলেধরা সন্দেহে কাউকে গণধোলাই দিয়ে আইন নিজের হাতে তুলে না নিতে অনুরোধ করা হয় জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে।

গুজবে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য জেলার ৪ উপজেলাতে পুলিশের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হচ্ছে। সচেতনতামূলক কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়াসমিন।

এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) এম.এম মাহমুদ হাসান, ঝালকাঠি থানার ওসি শোনিত কুমার গায়েনসহ পুলিশের ঊর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

যার আছে সে দিয়ে যান, যার নাই সে নিয়ে যান

রহিম রেজা, ঝালকাঠি থেকে-লেখা যার আছে সে দিয়ে যান, যার নাই সে নিয়ে যান। সচ্ছল এবং দুস্থ মানুষের প্রতি এমন আবেদন জানানো লেখা সংবলিত দেয়ালটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘মানবতার দেয়াল’ দেয়ালে এমন একটি লাগানো ব্যানার দিয়ে এবার ঝালকাঠি রাজাপুরে যাত্রা শুরু করেছে মানবতার দেয়াল। অনুকরণীয় এই মানবিক কাজটি করেছে ‘সত্যের সন্ধানে ব্লাড ব্যাংক, রাজাপুর’ নামক একটি সেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন।

খুলনা বরিশাল আঞ্চলিক মহাড়কের বাগড়ি বাজার এলাকার আলহাজ¦ লালমোন হামিদ মহিলা কলেজের মেইন গেটের সককের উত্তর-পূর্ব কর্ণার এলাকার একটি দেয়ালেই লেখা হয়েছে মানবিক আবেদনের এ কথাগুলো। ওই দেয়ালে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে ২০টিরও বেশি বিভিন্ন ধরনের পোশাক।

রাজাপুরের সচ্ছল মানুষরা ওই দেয়ালে রেখে যাচ্ছেন তাদের অব্যবহৃত ও বাড়তি পোশাক। আর সেগুলো দুস্থ মানুষরা যার যেটা প্রয়োজন, সেটা নিয়ে যাচ্ছেন। এ কারণেই দেয়ালটির নামকরণ করা হয়েছে ‘মানবতার দেয়াল’।

সোমবার সকালে এর ওই সংগঠনের কয়েক যুবক মিলে আনুষ্ঠিানিকভাবে এর কার্যক্রম শুরু করা হয়। শুরুর পর ওই দেয়ালে উদ্যোগী ওই যুবকরা ছাড়াও স্থানীয় কয়েক ব্যক্তি তাদের অব্যবহৃত পোষাক রাখতে শুরু করেন। দুপুর পর্যন্ত প্রায় অর্ধশত পোষাক ওই দেখালের টাঙিয়ে রাখা হয়েছে।

কয়েক অসহায় ব্যক্তি আবার ওখান থেকে তাদের পছন্দ ও চাহিদা অনুয়ায়ী পোষাক নিয়েছেন ব্যবহার করার জন। ওই রাস্তা থেকে যাতায়াতকারীদের সবার আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হল মানবতার দেয়াল। ওই পথ থেকে হাটতে গিয়ে চোখ আটকে যায় যে কারওই। রাজাপুর আলহাজ¦ লালমোন হামিদ মহিলা কলেজে একটি অনুষ্ঠান করতে এলে ওই সড়ক দিয়ে যাওয়ার সময় মানবতার দেয়ালে চোখ পড়ে জেলা তথ্য অফিসার রিয়াদুল ইসলাম। তিনি বলেন, উদ্যোগটি অত্যন্ত চমৎকার।

বর্তমান যুব সমাজ মাদক ও নানাভাবে অপকর্মে জড়িয়ে পড়ছে, তাদের মধ্যে থেকে একদল যুব সমাজের এমন উদ্যোগ সত্যিই প্রসংশনী। সকলের তাদেরকে সহয়োগীতা করা উচিত।

জেলা তথ্য অফিসারের সাথে থাকা রাজাপুর সাংবাদিক ক্লাব’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাংবাদিক রহিম রেজা বলেন, সমাজে আজ মানবতার চরম বিপর্যয় চলছে। গানমাধ্যমে চোখ রাখলেই যুব সমাজের চরম অবক্ষয় ও সংকট নিয়ে সুশীলসামাজ হতাশ। এসব খবরের ভীড়ে এমন একটি উদ্যোগ সতিই আবাক ও আশার সঞ্চয় জাগায়।

রাজাপুর সাংবাদিক ক্লাবের পক্ষ থেকে এসব যুবকদের সকল প্রকার সহয়োগীতা করারও আশ^াস দেন এবং সচ্ছল মানুষের এমন মানবিক কাজের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান। স্থানীয় কয়েক ব্যক্তি স্থাপিত মানবতার দেয়ালের প্রশংসা করে মন্তব্য করেছেন, তরুন যুবকদের এ উদ্যোগ সত্যিই বিবেককে নাড়া দিবে সমাজের সকলকে। এ উদ্যোগের প্রচার হলে উপকৃত হবে দুস্থ মানুষ গোষ্ঠী।

উদ্যোক্তারা জানান, সমাজে অনেক শ্রেণির মানুষ রয়েছে, যাদের কাপড়চোপড় কেনার সামর্থ্য নেই। আবার তাদের ঘরে ওই পরিবারগুলোর পাশে দাঁড়াতেই মানবিক দেয়াল স্থাপনের উদ্যোগ নেয় তারা। ২০১৫ সালে যাত্রা শুরু হয় ‘সত্যের সন্ধানে ব্লাড ব্যাংক, রাজাপুর। বর্তমানে এ ক্লাবের সদস্য সংখ্যা ১৫০ জন।

সেচ্ছায় রক্তদানসহ দুস্থ মানুষের কল্যানে কাজ করা এবং তাদের পাশে দাঁড়ানো, মাদক ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ, ইভটিজিংসহ সামাজিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে করা হচ্ছে বলে জানান ওই সংগঠনের সভাপতি ঝালকাঠি সরকারি কলেজের ম্যানেজমেন্ট বিভাগে অনার্স চড়ান্ত বর্ষে পড়–য়া ফাহাদ আল রিয়াদ। তার সাথে মানবতার দেলালে কার্যক্রমের সাথে জড়িত রয়েছে মাহফুজুর রহমান, মোঃ রুবেল, নাঈম হোসেন, মোঃ হাদি, রাব্বি, জুয়েল হোসেন, আলিম মৃধা, বাবু, তানভীর আহম্মেদসহ কয়েক যুবক সার্বিক সহায়তা করে আসছেন। সকলের সহযোগী পেলে আরও জনকল্যান ও মানব কল্যান কর্মকান্ড করার ইচ্ছা রয়েছে তরুন উঠতি বয়সী এসব যুবকদের।

২০১৫ সালে ইরানের উত্তর-পূর্ব মাশাদ শহরে শীতার্ত মানুষের মধ্যে শীতবস্ত্র পৌঁছে দিতে এক ব্যক্তি প্রথম এমন উদ্যোগ নেন।

রাজাপুরে বর্ধিত সভায় ৭ চেয়ারম্যান মনোনয়ন প্রত্যাশীসহ আ’লীগের একাংশের বর্জণ

রহিম রেজা, ঝালকাঠি থেকে-ঝালকাঠির রাজাপুরে উপজেলা আ’লীগের দলীয় উপজেলা চেয়াম্যান প্রার্থী বাছাইয়ের লক্ষে ঝালকাঠি-১ (রাজাপুর-কাঠালিয়া) আসনের এমপি বিএইচ হারুনের বর্ধিত সভায় দলীয় ৭ চেয়ারম্যান মনোনয়ন প্রত্যাশীসহ আ’লীগের একাংশ বর্জন করেছে।

জানা গেছে, শনিবার সকাল ১০ টায় উপজেলা অডিটোরিয়ামে জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি ও সম্পাদক দিয়ে বর্ধিত সভায় আয়োজন করা হয়। তবে জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডের অধিকাংশ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলো না বলে জানা গেছে।

সভায় উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ঝালকাঠি-১ (রাজাপুর-কাঠালিয়া) আসনের এমপি বিএইচ হারুন সভাপতিত্ব করেন।

এসময় বিভিন্ন ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আ’লীগে একাংশের নেতাকর্মীরা এ বর্ধিত সভায় বক্তব্য রাখেন। সভায় এমপি বিএইচ হারুন বলেন, তৃনমূলের নেতাকর্মীদের মতামতের ভিত্তিতেই যোগ্য ও জনপ্রিয় ব্যক্তিদের নাম জেলায় পাঠনো হবে। তিনি কারও আ’লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে কারও নাম ঘোষণা না করেই তার বক্তব্য শেষ করে সভাস্থল ত্যাগ করেন। কিস্তু সভায় বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান উপজেলা আ’লীগের সহ সভাপতি অধ্যক্ষ মনিরউজ্জামান ও উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. খায়রুল আলম সরফরাজ ও জেলা আওয়ামীলীগের বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সঞ্জিব বিশ্বাস ও উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফরোজা আক্তার লাইজুসহ আ’লীগের ৭ উপজেলা চেয়ারম্যান মনোনয়ন প্রত্যাশী এবং আ’লীগের একাংশের নেতাকর্মীরা সভা বর্জন করেছেন।

শুক্তাগড় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক বাবুল তালুকদার জানান, সঠিক সময়ে মিটিংয়ের কথা না জানানোর কারনে তিনি শুক্রবারে পারিবারিক কাজে পিরোজপুর গিয়েছিলেন।

শনিবারে আসতে দেরী হয়েছে, যখন আসছি তখন দুপুর ১টা বাজে। এসে বর্ধিত সভা পাইনি। শুক্তাগড় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুল হক মৃধা জানান, আমি ব্যক্তিগত কাজে ব্যস্ত থাকায় বর্ধিত সভায় অংশ গ্রহণ করতে পারিনি। বড়ইয়া ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলম মন্টুও সভায় অংশ নেননি।

উপজেলা মহিলালীগ সভাপতি মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফরোজা আক্তার লাইজু বলেন, জেলা আওয়ামীলীগ, আমরা রাজাপুর উপজেলার আওয়ামীলীগ, ইউনিয়ন পর্যায়েরসহ ত্যাগী ও পরীক্ষিত কোন নেতৃবৃন্দ বর্ধিত সভায় অংশ গ্রহণ করিনি। যারা একসময়ে জেপি (সাইকেল) থেকে এসে নৌকায় যোগদান করেছেন তারাই ওখানে ছিলো।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট খায়রুল আলম সরফরাজ বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের বাছাইয়ের জন্য দলীয় নেতাকর্মী ও আগ্রহী প্রার্থীদের নিয়ে ৫ দিন ধরে একাধিক বৈঠক হয়েছে কিন্তু কোন সিদ্ধান্তে পৌছাতে পারেননি এমপি মহোদয়। পরবর্তীতে রাজাপুরে এসে তিনি কোন নোটিশ ছাড়াই হঠাৎ এ মিটিং ডেকেছেন। আমরা জানতে পারলাম তিনি এক মনোনয়ন প্রত্যার্শীর পক্ষ নিয়েছেন। এ কারনে আমরা যারা মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলাম স্বাভাবিক কারনেই এ মিটিং এ আর যেতে পারি না।

জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সরদার মোঃ শাহ আলম জানান, আমি এবং সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির রাজাপুরের বর্ধিত সভায় যাবার কথা থাকলেও যেতে পারিনি। ওখানে কি হয়েছে তা জানি না।

ঝালকাঠিতে আমনের বাম্পার ফলন, চরম শ্রমিক সংকট

রহিম রেজা, ঝালকাঠি-ঝালকাঠিতে এবছর আমন ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। ফসল কাটা ও মারাই করতে কৃষকরা একন ব্যস্তসময় পার করছেন। তবে এলাকার বেকার যুবকরা আটো, অটো রিক্সা ও মোটরসাইকেল চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করায় ধান কাটা শ্রমিক সংকট দেয়া দিয়েছে চরম ভাবে।

আবাহাওয়া অনুকুলে থাকায় ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে বলছে কৃষক। তাইতো তাদের মুখে হাসি ফুটেছে।

আমন ধান চাষ করে এবার লাভবান হবে কৃষকরা। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সুত্রে জানাগেছে,‘ ঝালকাঠি জেলা এবছর ৪৯ হাজার ৯৪১ হেক্টর জমিতে আমন ধানের চাষ করা হয়েছে।

বীজ রোপন থেকে শুরু করে ধান কর্তন পর্যন্ত কোন রকম বৈরি আবাহাওয়া না থাকায় ফলন ভাল হয়েছে। বিগত বছরে অসময়ের বৃষ্টিসহ অন্যান্য প্রকৃতিক বিপর্যয় থাকায় আমনের ব্যপক ক্ষতি হয়। এতে কয়েক হাজার হেক্টর জমির আধাপাকা ধান পঁেচ গিয়ে ফলনের বিপর্জয় হয়। কৃষক বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পরেছিল।

এবছর চিত্র ভিন্ন। জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্ত জানিয়েছে, এবছর আমন ধানের উৎপাদন লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৯৬ হাজার ১৬৯ মে.টন। এখন পর্যন্ত ৬০ থেকে ৭০ ভাগ ফসল কাটা হয়েছে।

এবছর উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল প্রায় এক লক্ষ মে.টন চাল। ফলনও হয়েছে বিগত ১০ বছরের মধ্যে রেকর্ড পরিমান। এই অভুতপূর্ব ফলন দেখে কৃষকরা আশায় বুক বেধেছে। তবে কৃষকদের দাবি ভাল ফলনের পাশাপাশি তাদের উৎপাদিত ফসলের যেন ন্যায্য মূলে নিশ্চিত করে সরকার। তাহলে কৃষককূল আগ্রহ নিয়ে চাষাবাদ করবে, অর্থনৈতিক ভাবে মুক্ত হবে তারা। আমন ধানের মন ( ৪০) কেজি ৮০০ থেকে ৯০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

নলছিটি উপজেলার প্রতাপ গ্রামের কৃষক আনোয়ার হোসেন বলেন,‘ এবছর আমন ধানের ফলন ভাল হয়েছে। তবে ধানের ন্যায্য মূল্য যেন আমরা পাই সে ব্যাপারে সরকারের দৃষ্টি আর্কশন করছি। একই এলাকার কৃষক আব্দুল বারেক খান বলেন,‘ বর্তমানে শ্রমিকের পারিশ্রমিক অনেক বেশি।

ফলস রোপন থেকে শুরু কর্তন পর্যন্ত অনেক টাকা খরচ হয়। ধানের দাম বেশি হলে আমরা বাঁচতে পারি আর কম হলে আমাদের বাঁচার কোন পথ থাকে না। বর্তমানে ধান কাটা শ্রমিক সংকট চরম আকার ধারন করেছে।

ঝালকাঠি কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. ফজলুল হক বলেন,‘ কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে এখানকার কৃষকদের বিভিন্ন রকমের পরামর্শ আমরা দিয়েছে। পাশাপাশি আবাহাওয়া ভাল থাকায় এবছর ফলন ভাল হয়েছে।

ঝালকাঠির দুটি আসনে আমু ও ওমরসহ ২১ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল

রহিম রেজা, ঝালকাঠি থেকে-নির্বাচন কমিশনের নির্ধারিত শেষ দিন বুধবার ঝালকাঠির দুইটি আসনে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শাহজাহান ওমরসহ ২১ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। ঝালকাঠির জেলা রির্টানিং কর্মকর্তা ও রাজাপুর, কাঠালিয়া ও নলছিটির সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তাদের কাছে সকাল থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা এ মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

ঝালকাঠি-১ আসনে মনোয়নপত্র দাখিল করেন, বজলুল হক হারুন- (আওয়ামী লীগ), কেন্দ্রীয় আ’লীগ নেতা মনিরুজ্জামান মনির, (স্বতন্ত্র), ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর- (বিএনপি), মো. রফিকুল ইসলাম জামাল- (বিএনপি), এমএ কুদ্দুস খান- (জাতীয় পার্টি- এরশাদ), কমরেড আবুল হোসেন- (ওয়ার্কাস পার্টি), মো. রুবেল হাওলাদার- (জাতীয় পার্টি-মঞ্জু), আল্লামা নুরুল হুদা ফয়েজী- (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), প্রবীর কুমার মিত্র- (এনপিপি), মাওলানা ফয়েজুল হক- (স্বতন্ত্র), মো. শাহ জালাল শামীম- (স্বতন্ত্র), ইয়াছমিন আক্তার পপি- (স্বতন্ত্র), মাওলানা দেলোয়ার হোসেন (স্বতন্ত্র) ও নূরুল ইসলাম মূকুল মৃধা (স্বতন্ত্র) এবং ঝালকাঠি-২ আসনে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন আমির হোসেন আমু- (আওয়ামী লীগ), ইসরাত সুলতানা ইলেন ভ’ট্টো-(বিএনপি), জিবা আমিনা খান- (বিএনপি), মুফতি মাওলানা ফয়েজুল করিম- (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), জাহাঙ্গীর হোসেন খান- (এনপিপি), এমএ কুদ্দুস খান- (জাতীয় পার্টি-এরশাদ), জাহান শাহ কবির পারভেজ (গণফোরাম)। দুপুরে কন্দ্রীয় আ’লীগ নেতা মনিরুজ্জামান মনির উপজেলা সদরে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীদের নিয়ে শো ডাউন করেন।

উজিরপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের খুনি পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে নিহত

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি-বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার জল্লা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জল্লা ইউনিয়র পরিষদ চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টুকে গুলি করে হত্যার ভাড়াটিয়া খুনি রবিউল আলম (৩৫) সোমবার দিবাগত গভীর রাতে পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছে।

বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম মঙ্গলবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, নিহত রবিউল মাদারীপুর জেলার কালকিনি উপজেলার ক্রোকিরচর গ্রামের লাল চাঁন মিয়ার পুত্র।

সোমবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মাদারীপুর সদর থেকে রবিউল আলমকে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ওইদিন গভীররাতে থানা পুলিশ উজিরপুর উপজেলার জল্লা ইউনিয়নের পীরের পাড় গ্রামের ফুলতলা নামক এলাকার অস্ত্র উদ্ধারের অভিযানে যায়। সেখানে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা দুর্বৃত্তরা

পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করলে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। গুলি বিনিময়ের সময় রবিউল ইসলাম গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায়। তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। পুরো অভিযানে একটি আগ্নেয়াস্ত্রসহ বেশ কিছু ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত রবিউল আলমের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ছয়টি হত্যা মামলা রয়েছে।

এ ব্যাপারে উজিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শিশির কুমার পাল জানান, জনপ্রিয় চেয়ারম্যান নান্টু হত্যার মূল শুটার পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছে। তাকে ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

নান্টুর পিতা মামলার বাদী শুকলাল হালদার তার প্রতিক্রিয়ায় জানান, সন্ত্রাসী রবিউল ভাড়াটিয়া খুনি। সে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যাওয়ায় আমরা খুশি, তবে মূল পরিকল্পনাকারী ও অর্থদাতাদের আইনের আওতায় এনে তাদেরকেও উপযুক্ত শাস্তি দেয়া প্রয়োজন।

উল্লেখ্য, গত ২০সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা রাতে জল্লা ইউনিয়নের কারফা বাজারের নিজের কাপরের দোকানে বসে থাকা অবস্থায় হেলমেট পরিহিত তিন দুর্বৃত্ত মোটর সাইকেল যোগে এসে অর্তকিতভাবে গুলি করে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টুকে হত্যা করে।

শ্রমিকের লাশ ফিরিয়ে আনতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি-বাংলাদেশী শওকত নামে এক শ্রমীক হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মালদ্বীপের রাজধানী মালে বসে মৃত্যুবরন করেছে বলে জানাগেছে। বাংলাদেশী শ্রমিক শওকতের লাশ দেশে ফিরিয়ে আনতে প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন গৃহবধূ ময়না বেগম।

নিহত শওকতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, বরিশাল জেলার গৌরনদী উপজেলার বদরপুর গ্রামের মৃত আবুল হাশেম হাওলাদারের পুত্র শওকত (৪১) ছয় সদস্যর দারিদ্র পরিবারে আর্থিক স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে গত সাত বছর পূর্বে মালদ্বীপে পাড়ি জমিয়েছিলেন।

বৃদ্ধ মা, স্ত্রী, একপুত্র ও দুই কন্যাকে নিয়ে ভালোই চলছিলো শওকতের পরিবার। তার বড় পুত্র রনি হাওলাদার এবার এইচএসসি পাশ করেছে। সবার ছোট মেয়ে সীমা জন্ম থেকেই বাকপ্রতিবন্ধী। শওকতের স্ত্রী ময়না বেগম জানান, গত ২৮ অক্টোবর বেলা ১১টার দিকে মালদ্বীপের রাজধানী মালে বসে তার স্বামী হৃদরোগে আক্রান্ত হন।

তাৎক্ষনিক সেখানকার বাংলাদেশী শ্রমিকরা তাকে (শওকত) স্থানীয় একটি বেসরকারী হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। তিনি আরও জানান, বর্তমানে তার স্বামীর লাশ ওই হাসপাতালে ফ্রিজিং করে রাখা হয়েছে। স্বামীর লাশ বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনতে তিনি (ময়না বেগম) প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এদিকে বাবার মৃত্যুর খবর শুনে পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের ন্যায় নির্বাক হয়ে পরেছে শওকতের বাকপ্রতিবন্ধী মেয়ে সীমা আক্তার (১৭)। মুখে স্পষ্টভাবে কথা বলতে না পারলেও সীমার হৃদয় বিদারক হাউমাউ বিলাপে শোকার্ত পরিবারকে সমবেদনা জানাতে আসা গ্রামবাসী ও স্বজনদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

উজিরপুরে চেয়ারম্যান হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি-বরিশালের উজিরপুর উপজেলার জল্লা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টু হত্যার ৪৪ দিন অতিবাহিত হলেও মূল হত্যাকারীরা এখনও ধরা পরেনি।

মূল হোতাসহ ২১ জন আসামী পলাতক থাকায় তাদের খুঁজে বের করে গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক বিচার তথা ফাঁসির দাবি জানিয়েছে ওই ইউনিয়নের আপামর জনসাধারণ, বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক-রাজনৈতিক সংগঠনসহ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের বরিশাল জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দ।

 শুক্রবার বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত স্থানীয় কারফা বাজারে জল্লা ইউনিয়নের বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার সহশ্রাধিক লোক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভায় অংশগ্রহণ করে।

উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা সমীর মজুমদারের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন, বরিশাল জেলা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. হিরণ কুমার দাস মিঠু, যুগ্ন সম্পাদক এ্যাড. বিষ্ণুপদ মুখার্জী, সাংগঠনিক সম্পাদক পরিতোষ পাল, জেলা যুব ঐক্য সম্পাদক রীণা রানী হালদার, যুব ঐক্য নেতা বিধান চন্দ্র রায়, জেলা ছাত্র ঐক্য সম্পাদক প্রিয়ংকা পাল, সাংগঠনিক সম্পাদক মিঠুন দাস, স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা নজরুল ইসলাম বাচ্চু, জল্লা ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামীলীগ সভাপতি বেলা রানী জয়ধর, যুবলীগ নেতা মিজানুর রহমান সুমন, ওয়ার্কার্স পার্টি নেতা স¤্রাট মজুমদার, শিক্ষক স্বদেশ বিশ্বাস, জার্মান প্রবাসী রনজিত সরকার প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, যে বালিকা জীবনের তরে তার পিতাকে হারিয়েছে, মুক্তিযোদ্ধা পিতা তার সন্তানের লাশ কাঁধে নিয়েছে অথচ হত্যাকান্ডের ৪৪ দিন পরেও মূল আসামীরা কোন যাদুবলে আজ পর্যন্ত ধরা পরছেনা সেটা এখন ভেবে দেখার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি- তাই এটাও বিশ্বাস করি পুলিশ প্রশাসন নৃশংস এই হত্যাকান্ডের মূল হোতাদের অচিরে গ্রেফতার করে তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসি কার্যকর করবেন।