বৃহস্পতিবার-২১ নভেম্বর ২০১৯- সময়: রাত ১:০৫
বিরামপুরে অসহায় ও দরিদ্রদের বিনামূল্যে চোখের অপারেশন বিরামপুরে সাংবাদিকের বাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় আটক-১ ৭ কেজি চালের মূল্যে মিলছে ১কেজি পেয়াজ বিরামপুরের বাজারে চিকিৎসা সেবা দিয়ে মানব সেবা করতে চাই-পর্যটন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব হুমায়ুন কবীর বিরামপুরে নেশার ইনজেকশন ও ফেন্সিডিলসহ আটক-৩ হিলি চেকপোস্টে বিজিবি’র গোয়েন্দা সদস্যের বিরুদ্ধে সাংবাদিককে হয়রাণীর অভিযোগ বিরামপুরে বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস পালিত বিরামপুরে প্রকল্প সমাপনী কর্মশালা গরীব ও অসহায় মানুষকে চিকিৎসা সেবা দিতে পারলে আমি শান্তি পাই জনবল ও সরঞ্জামের অভাবে আজও চালু হয়নি, নবাবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস স্টেশন

রাজাপুরে অর্ধশত প্রাথমিক স্কুলে প্রধান শিক্ষক নেই, কার্যক্রম ব্যাহত

রহিম রেজা,ঝালকাঠি প্রতিনিধি-ঝালকাঠির রাজাাপুরে ৫০টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন ধরে প্রধান শিক্ষক নেই।
এসব বিদ্যালয়গুলো ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক দিয়ে কোন রকম খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে। এতে শিক্ষা কার্যক্রম ও প্রশাসনিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে এবং প্রধান শিক্ষক না থাকায় সহকারি শিক্ষকরা সেচ্ছাচারিতা এবং ইচ্ছে মত পাঠদানসহ স্কুলের কার্যক্রম পরিচালনা করছেন।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা ১শ’ ২২ টি প্রাথমিক স্কুল রয়েছে এর মধ্যে ৪ নং তারাবুনিয়া বোর্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৬নং দক্ষিন তারাবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৭নং দক্ষিন তারাবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৮নং দঃ পঃ তারাবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২৮নং পঃফুলহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৩৫নং ছোট কৈবর্তখালি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৯নং লেবুবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১৬নং চরকেওতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৫৪নং ভাতকাঠি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ৫৫নং আদাখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ মোট ৫০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক না থাকায় মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে শিক্ষার পরিবেশ।
অভিযোগ রয়েছে, প্রধান শিক্ষক না থাকায় ওইসব স্কুলের প্রশাসনিক কার্যক্রম ভেঙ্গে পড়েছে এবং সহকারি শিক্ষকরাও সঠিকভাবে কাস না করিয়ে নামকাওয়াস্তে কার্যক্রম করে যাচ্ছে।
এ সুযোগে ওই সকল প্রতিষ্ঠানের সহকারি শিক্ষকরা সেচ্ছাচারিতা ও ইচ্ছে মত পাঠদানসহ স্কুলের কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। এমনকি রাজনৈতিক ও স্থানিয় প্রভাব খাটিয়ে ওই সকল বিদ্যালয়ের কিছু সংখ্যক দপ্তরী ও সহকারি শিক্ষক কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীদেরকে মারধর করেছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসব স্কুলে সঠিক সময়ে কাস শুরু হয় না এবং পূর্ণ সময়ের পূবের্ই স্কুল ছুটি দিয়ে দেয়া হয়। ওই সকল বিদ্যালয়ের অভিভাবকরা নতুন বছরের লেখাপড়ার শুরুতেই দ্রুত প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ করেছেন।
এ বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ রফিকুল ইসলাম জানান, প্রধান শিক্ষক না থাকায় বিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও শিক্ষা কার্যক্রম মারত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে।
প্রধান শিক্ষক না থাকায় সহকারি শিক্ষকরা সঠিক সময়ে স্কুলে যেতে চান না এবং সঠিকভাবে পাঠদান করান না। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে, শিক্ষকদের পদোন্নতি দেয়া হলে এবং নতুন শিক্ষক নিয়োগ হলে এ সমস্যা সমাধান হবে বলেও জানান রফিকুল ইসলাম।

print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *