রবিবার-২৯ নভেম্বর ২০২০- সময়: রাত ৪:৫৯
পর্যটকদের জন্য নয়নাভিরাম ‘সাজেক ভ্যালি’ শীতে বাঙ্গালীর ঐতিহ্য ভাপা পিঠা পাঁচবিবিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের সমাপণী কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হলে মাদকমুক্ত ও অসমাপ্ত কাজ করব-আতিয়ার রহমান মিন্টু নেশার টাকার জন্য ২২ দিনের নবজাতককে কুপিয়ে হত্যা ঘোড়াঘাটে হেলথ এসোসিয়েশনের কর্মবিরোতি বন্ধ রাস্তা অবমুক্ত করলেন ইউএনও ভাতা বন্ধ ভাতা ভোগীরা মানবতার জীবনযাপন বিরামপুরে ৭২ বছরের বৃদ্ধ’কে ঔষধ ও আর্থিক সহায়তা দিলেন-ওসি মনিরুজ্জামান কোভিট-১৯ পরিস্থিতিতে মোরেলগঞ্জে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেয়া হচ্ছে স্কুল ফিডিং বিস্কুট

Daily Archives: November 26, 2020

এ যেন আরেক ছিটমহল, এক উপজেলার মানুষ বসবাস অন্য উপজেলার ভিতরে

প্রহলাদ মন্ডল সৈকত, রাজারহাট(কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি-কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নের ৫ গ্রামের প্রায় সোয়া ৩ হাজার মানুষ বৃটিশ আমল থেকে বসবাস করছে পাশর্^বর্তী নাগেশ^রী উপজেলার ভিতরবন্দ ইউনিয়নের মানচিত্রের অভ্যন্তরে। এ যেন আরেক ছিটমহল।

দীর্ঘ সময় ধরে এসব পরিবার বিভিন্নভাবে বঞ্চনার শিকার হলেও জনপ্রতিনিধিরা তাদের দুর্ভোগ লাঘবে কখনো পাশে এসে দাঁড়ায়নি। ফলে যুগ যুগ ধরে অন্য উপজেলার সুযোগ সুবিধা নিলেও ভোট দিচ্ছেন আরেক উপজেলায়।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, বিষয়টি আপনাদের মাধ্যমে প্রথম জানতে পারলাম। দুই উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের মাধ্যমে খোঁজখবর নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সরেজমিনে ওই এলাকার মানুষের কাছ থেকে জানা যায়, বৃটিশ আমলে শিরিষ চন্দ্র ও সতিশ চন্দ্র নামে দুই মহারাজা উলিপুর ও নাগেশ^রী উপজেলার ভিতরবন্দে জোতদারী চালাতেন।

তাদের জোতদারী এলাকার সীমানায় বসবাসকারীদের সেইমত তাদেরকে খাজনা দিতে হতো।

ভারত ভাগ ও দেশ স্বাধীন হওয়ার পরেও জোতদারদের রেখে যাওয়া সীমানা জটিলতার কারণে ভোগান্তিতে পরে যান এই এলাকার ৫ গ্রামের মানুষ।

ভিতরবন্দ ইউনিয়ন পরবর্তীতে নাগেশ^রী উপজেলার মধ্যে পরে যায়। অপরদিকে ভিতরবন্দ ইউনিয়নের অভ্যন্তরে বসবাসরত ৫ গ্রামের মানুষ উলিপুরের মহারাজার অধীনে থাকায় তারা পরবর্তীতে কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নের ভোটার হয়ে যান। সৃষ্টি হয় ছিটমহলগুলোর মত তাদের অবস্থা।

ওই এলাকার কৈকুড়ি গ্রামের মৃত: কচের খানের পূত্র আহম্মেদ হোসেন (৮৫) জানান, আমরা সদর উপজেলার ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নের ৫গ্রামের মানুষ বসবাস করছি পাশর্^বর্তী নাগেশ^রী উপজেলার ভিতরবন্দ ইউনিয়নের ভিতরে। এখানে ৫টি গ্রামের মধ্যে কৈকুড়ি গ্রামে ২২৫টি খানা, বড়ভিটা গ্রামে ১৫০টি খানা, মরাদিগদারী গ্রামে ৭০খানা, টেংনার ভিটা গ্রামে ১০০খানা এবং দিগদারী গ্রামে ৫৫খানাসহ মোট ৬শতাধিক খানায় প্রায় সোয়া ৩ হাজার মানুষ বৃটিশ আমল থেকে আরেক উপজেলার ইউনিয়নে বসবাস করছি। ভোটার সংখ্যা ১ হাজার ৮শ’। বন্যা হলেই আমাদেরকে ভিতরবন্দে আশ্রয় নিতে হয়। সাহায্য সহযোগিতা তারাই করেন। কিন্তু আমরা বাসিন্দা আরেক ইউনিয়নের।

এসব এলাকার মানুষের লেখাপাড়া, বিয়ে-শাদী, ব্যবসা-বাণিজ্য, বিচার-সালিশ, বন্যায় আশ্রয় গ্রহন সবকিছুই করতে হয় ভিতরবন্দে। কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্রে তাদের ইউনিয়ন ভোগডাঙ্গা। ফলে সামাজিক বেষ্টনির সকল ধরণের সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত বেশিরভাগ মানুষ। মাঝখানে বিলের ছড়া দিয়ে বিচ্ছিন্ন এ এলাকার রাস্তাঘাটের বেহাল দশার কারণে রোগী পরিবহনসহ যাতায়াত সমস্যায় ভুগতে হচ্ছে তাদেরকে। দীর্ঘদিন ধরে বঞ্চিত এসব গ্রামের মানুষ উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিবর্তন করে বর্তমান অবস্থান নাগেশ^রী উপজেলার ভিতরবন্দের বাসিন্দা হতে চান।

এই গ্রামের কাশেম , ছামসুল ও ছামিনা বেগম জানান, চারদিকে ভিতরবন্দ আর আমরা তার ভিতরে বসবাস করছি। এখান থেকে ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নে যেতে হলে ভিতরবন্দ পার হয়ে আমাদেরকে যেতে হয়। আমাদের অবস্থা ছিটমহলের মানুষের মত। আমরা যেহেতু ভিতরবন্দের ভিতরে আছি, এখন আমরা এখানেই থাকতে চাই। এজন্য আপনারা আমাদেরকে সহযোগিতা করেন।

এ ব্যাপারে ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইদুর ইসলাম জানান, আপনাদের কে কী বলেছে জানিনা। তবে ওই এলাকার অনেক জ্ঞানী গুণি মানুষ আছে যারা আমার ইউনিয়নে থাকতে চায়। এখনো অনেকে মোবাইল করে আমাকে জানায় ভিতরবন্দ ইউনিয়নে তারা থাকবে না। আমারা ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নে দেশ স্বাধীনের আগে থেকে আছি, এখনো এই ইউনিয়নে থাকতে চাই।

বিষয়টি নিয়ে কুড়িগ্রামের পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট এস.এম আব্রাহাম লিংকন জানান, ভৌগলিক অবকাঠামো জনগণের কল্যাণ্যের জন্য। এটা একটা স্বাধীন দেশের মধ্যে ছিটমহলের মত অস্থিত্ব। তারা যে উপজেলায় রয়েছে সেখানে এডজাস্ট করে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে বিষয়টি দ্রুত নিষ্পত্তি করা উচিত।

এ ব্যাপারে কুড়িগ্রাম-২ আসনের সংসদ সদস্য পনির উদ্দিন আহমেদ জানান, মানুষগুলো খুবই দুর্ভোগের মধ্যে রয়েছে। জটিলতা কাটাতে স্থানীয় জনগন ও জনপ্রতিনিধিদের সদিচ্ছার মাধ্যমে সমাধান করা উচিত।

কুড়িগ্রামে যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

প্রহলাদ মন্ডল সৈকত-কুড়িগ্রামে আওয়ামী যুবলীগের সংগ্রাম, ঐতিহ্য ও গৌরবের ৪৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে।

বুধবার ১১ নভেম্বর শহরের শাপলা চত্বর সংলগ্ন জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ, আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় জেলা যুবলীগের আহবায়ক অ্যাডভোকেট রুহুল আমীন দুলাল-এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, জেলা যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক আনিছুর রহমান চাঁদ, মমিনুল ইসলাম মমিন, আহবায়ক কমিটির সদস্য রুমু, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রিপন আহমেদ, সাকিব হোসেন সেতু প্রমুখ।

আলোচনা শেষে দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন, মাওলানা মোহাম্মদ নুর বখ্ত। এসময় নেতারা বঙ্গবন্ধুর আত্মার মাগফেরাত কামনা, প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করেন

১৪ মাসের এক শিশুকে বাঁচাতে মানবতার কল্যানে এগিয়ে আসুন

মোঃ আফজাল হোসেন-প্রতিটি মানুষকে মানবতার কল্যাণে কিছু কাজ করা দরকার। কারণ আমাদের জানা উচিত মানুষ মানুষের জন্য। অথচ আমরা আমাদের ব্যস্ততম জীবন-জীবিকার যুদ্ধে সেই শপথ ভুলে যাই।

সেই শপথ স্মরণ করে আসুন না, একটি নিষ্পাপ ফুটন্ত ১৪ মাসের শিশুকে বাঁচতে এগিয়ে আসি না কেন! কিছুটা পরকালের পুন্য সঞ্চয় কথা বাদেই দিলাম, মানবতাকে জাগ্রত করতে এগিয়ে আসি।

দিনাজপুর প্রেসক্লাবের অফিস সহকারী, সবার সেবায় যে ছেলেটি দিন রাত পরিশ্রম করে গণমাধ্যম কর্মীদের পাশে থেকে দেশ ও সমাজের উন্নয়নের সহযোগিতা করে যাচ্ছে সে আর কেউ নয় “সোহেল পারভেজ” এর একমাত্র কন্যা। যে জন্ম থেকে হার্ট রোগে আক্রান্ত হয়ে বাঁচার যুদ্ধে লড়াই করছে।

১৪ মাসের সেই মিলি হাসির শিশুটি। সাইফা জান্নাত সুবহা’র এখন বাংলাদেশের চিকিৎসা শেষ। দিনাজপুর এবং ঢাকার চিকিৎসরা বলেছেন, তার হার্ট ফুটা (ভিএসডি) সেই সাথে তার হার্টের ভাল্ব দুটোর জায়গায় রয়েছে একটি মাত্র ভাল্ব।

হার্টের রক্ত নালি সক্রিয় থাকছে না। এই শংকটময় বিপদের সময় তাকে বাঁচাতে পারে উন্নত চিকিৎসা। আমার আপনাদের সহযোগিতা এবং আল্লাহ তালার অসিম রহমত।

ঢাকার হার্ট বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ভারতের ভেলরে মানবতার ত্রাণ পুরুষ, শিশুদের দেবীশেঠির চিকিৎসা নিতে। কিন্তু বিধিবাম তার বাবার সৎ সামান্য আয় কি পারবে তার ১৪ মাসের শিশু সন্তানকে সুস্থ্য করে তার জন্মধারিণী ময়ের কোলে ফিরিয়ে দিতে? চিকিৎসকরা বার বার বলছে এ ধরণের রোগী আমরা ইতিপূর্বে দেখি নাই। তাই আপনাদের আর্থিক সহযোগিতা পেলে মাইফা জান্নাত সুবহা এই সুন্দর পৃথিবীতে আপনাদের সন্তানদের সাথে খেলতে পারবে, পড়তে পারবে।

যদি সম্ভব হয় মানবতার আলোকে কিছু আর্থিক সহযোগিতা পাঠাবেন নতুবা নিম্ন-

ঠিকানায়–সোহেল পারভেজ, অফিস সহকারী, দিনাজপুর প্রেসক্লাব,

মোবাইল- ০১৭২৪১৬২২৫২ অথবা, এক্সিম ব্যাংক, গনেশতলা শাখা, দিনাজপুর। সঞ্চয় একাউন্ট নং-০৫৫১২১০০২২২১৫৬ ও রুপালী ব্যাংক,  সুইহারী শাখা,  দিনাজপুর।  সঞ্চয় একাউন্ট নং-৪৬২২০১০০০৯৪০৩,

বিরামপুরে মোহনা টিভির ১১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন

মোঃ নয়ন হাসান, বিরামপুর, প্রতিনিধি-জনপ্রিয় দর্শক নন্দিত মোহনা টেলিভিশন ১০ বছর পেরিয়ে ১১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে কেক কেটে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করা হয়েছে।

দিনাজপুরের বিরামপুর প্রেসক্লাবের অস্থায়ী কার্যালয়ে মোহনা টিভির প্রতিনিধি মোঃ আকরাম হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে কেক কাটেন, দিনাজপুর পুলিশ সুপার মোঃ আনোয়ার হোসেন,বিপিএম-পিপিএম (বার) এসময় বিশেষ অতিথি হিসিবে উপস্থিত ছিলেন, বিরামপুর উপজেলা চেয়ারম্যান খায়রুল আলম রাজু, বিরামপুর সার্কেলের সিনিয়র এএসপি মিথুন সরকার,  পৌর মেয়র আলহাজ্ব লিয়াকত আলী সরকার টুটুল,  বিরামপুর থানার (ওসি) মনিরুজ্জামান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শ্রী নাড়ু গোপাল কুন্ডু, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক গোলজার হোসেন, বিরামপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহিনুর আলম, সাধারণ সম্পাদক মশিহুর রহমানসসহ বিভিন্ন প্রিন্টস ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ প্রমুখ।

কুড়িগ্রামে বাংলাদেশ জুডিশিয়াল কর্মচারী এসোসিয়েশনের স্মারকলিপি প্রদান

প্রহলাদ মন্ডল সৈকত, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি-কুড়িগ্রাম সহ দেশের সকল অধস্তন আদালতে সহায়ক কর্মচারীদের অভিন্ন নিয়োগবিধি, জুডিশিয়াল সার্ভিসের সহায়ক কর্মচারী হিসাবে অর্ন্তভুক্তি, সকল ব্লক পদ বিলুপ্তি করে যুগোপযোগী পদ সৃষ্টি ও স্বতন্ত্র বেতন স্কেলের দাবীতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছেন বাংলাদেশ জুডিশিয়াল কর্মচারী এসোসিয়েশন কুড়িগ্রাম জেলা কমিটি।

১১ নভেম্বর বুধবার সকালে তিন দফা দাবী সংবলিত স্মারকলিপি জেলা প্রশাসকের নিকট প্রদান করেন সংগঠনটির কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা শাহ আলম, কুড়িগ্রাম জেলা সভাপতি ফরিদুল ইসলাম ও সাধারন সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম।

জলঢাকায় শত বছর ধরে ব্রীজ না থাকায় বাশেঁ সাঁকোই ভরসা

হাসানুজ্জামান সিদ্দিকী হাসান , জলঢাকা প্রতিনিধি-নীলফামারীর জলঢাকায় ব্রীজ না থাকায বাঁশের সাকোঁ দিয়ে দুই পারের মানুষের চলাচলে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে শত বছর ধরে।

মঙ্গলবার সরেজমিনে গিয়ে দেখাযায়, উপজেলার গোলমুন্ডা ইউনিয়নের চৌধুরী পাড়া হতে ৫ নং ওয়ার্ডের শ্যামপুরের সাথে গোলমুন্ডার যোগাযোগের একমাত্র সড়কে ধুম নদীর উপর নির্মিত বাঁশের সাকোঁর ব্রীজটি।

এই বাঁশের সাকোঁটি প্রতি বছর বন্যায় ভেঙে গেলে ওই দুই পারের মানুষের চলাচলে দুর্ভোগ নেমে আসে। তখন ৬ কিলোমিটার সড়ক ঘুরে গোলমুন্ডা যেতে হয়।

ব্রীজটি ভেঙে পড়ার পর এলাকাবাসীর উদ্দ্যোগে বাঁশের সাকোঁর ব্রীজ নির্মাণ করে শত বছর ধরে কষ্ট করে চলাচল করে আসছে ।
গেল বন্যায় সেই বাঁশের ব্রীজটি পানির স্রোতের সাথে ভেঙে গিয়ে ভেসে যাওয়ায় ও-ই এলাকার মানুষের চলাচলে আবারো দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে ।

বর্তমানে চলাচলের জন্য এলাকাবাসী সেখানে একটি বাশের সাঁকোর ব্রীজ নির্মান করে চলাচল করছে । এ-ই বাঁশের ব্রীজ নির্মান করতে খরচ হবে ৪০ হাজার টাকা ।

আমিনুল (৬০) জনান, আমি ছোট বেলা থেকে দেখে আসছি এলাকা বাসীর সাহায্য সহযোগিতায় তৈরী করা এ-ই বাঁশের সাকোঁ ব্রীজ গোলমুন্ডার চৌধুরী পাড়ার সাথে শ্যাপুরের যোগাযোগের একমাত্র ভরসা। শত বছর ধরে পাকা ব্রীজ নির্মান হয় না। তবে এখানে একটি পাকা ব্রীজ হলে জনগনের দুর্ভোগ লাগভ হবে।

মুহিদুল ইসলাম (৫৫) বলেন বাপ দাদার আমল থেকে চলাচল ও পারাপার হওয়া এ নদীর উপর বাঁশের সাকোঁ আরও চাই না। চাই স্থায়ী ব্রীজ। এখানে পাকা ব্রীজ না থাকায় সরকারের কোন উন্নয়নের ছোয়া লাগেনি। ভোট এলে সবাই আসে ভোট চায় প্রতিশ্রুতি দেয় ভোট গেলে নির্বাচিত হলে সবকিছু ভুলে যান। কিন্তু ব্রীজ আর হয় না।

রফিক (২৫) বলেন এখানে পাকা ব্রীজ না থাকায় আমাদের অনেক দূর্ভোগ পোহাতে হয়, তাতে দুঃখ নেই কিন্তু দুঃখ তখন হয় যখন কোন মুমূর্ষ রোগীর চিকিৎসার জন্য আনা এম্বুল্যান্স বা গাড়ি ব্রীজের কারনে রোগীর বাড়ি পর্যন্ত যেতে পারে না।

অনেকদিন ধরে আমরা এ নদীর উপর ব্রীজ নির্মানের দাবী জানালেও অদ্যবদী ব্রীজ নির্মান হয়নি।এ ব্রীজ নির্মানের দাবী বর্তমানে এলাকাবাসীর প্রানের দাবীতে পরিনত হয়েছে।

এ বিষয়ে শ্যামপুর এলাকার বাসিন্দা উপজেলা জাতীয় যুব সংহতির সদস্য সচিব ও জেলা নেতা সরিফুল ইসলাম সোহাগ জানান, এ ধুম নদীর উপর একটি পাকা ব্রীজ নির্মাণ করার জন্য আমাদের এলাকার সাংসদ মেজর রানা মোঃ সোহেল ( অবঃ) এ-র সাথে কথা হয়েছে। তিনি একটি প্রস্তাবনা পাঠিয়েছেন।

প্রস্তাবিত ১ শত ২০ ফিট ব্রীজ টি সংশোধন করে ১ শত ৮ ফিট ও ৩ ফিট উচু করার প্রস্তাবনা স্থানীয় প্রকৌশল অফিসে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। যার বাজেট ধরা হয়েছে ৩ কোটি ২০ লাখ টাকা। এ ব্রীজটি নির্মান হলে এলাকার জনগনের ভাগ্যের চাকা পরিবর্তন হবে।

গোলমুন্ডা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন জানান, স্থানীয় সংসদ সদস্যের সাথে কথা হয়েছে তিনি এ নদীর উপর একটি পাকা ব্রীজ নির্মানের ব্যাবস্থা করবেন।

এ বিষয়ে উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী আবদুর রউফ বলেন, আমরা গোলমুন্ডা ইউনিয়নের চৌধুরী পাড়া ধুপ নদীর ঘাটের উপর একটি ব্রীজ নির্মানের প্রাথমিক জরিপ করে স্থানীয় সংসদ সদস্যের সুপারিশ সহ কাগজ পত্র সংশ্লিষ্ট দপ্তরে পাঠিয়েছি।

পাঁচবিবিতে আগুনে ক্ষতিগ্রস্থদের ত্রাণ প্রদান

পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি-১১নভেম্বর,জয়পুরহাটের পাঁচবিবির পলাশগড় আগুনে পোড়া ক্ষতিগ্রস্থ আদিবাসি পরিবারগুলোর মাঝে ত্রাণ সহায়তা প্রদান করা হয়।

ধরঞ্জী দাখিল মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি, ইউপি পুলিশিং কমিটির সাঃ সম্পাদক ও আসন্ন ধরঞ্জী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী তরুন ও উদীয়মান আ.লীগ নেতা মোঃ মাহমুদুল হাসান ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে চাল, ডাল, তেল, আলু, শাড়ি, লুঙ্গি ও শীতের কম্বল প্রদান করেন।

স্থানীয় ও ফায়ার সার্ভিস সুত্রে জানাযায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর বৈদতিক র্স্টসার্কিটে পলাশগড় গ্রামের গরীব দিন মজুর আদিবাসি অমল, সুরমি ও বিমলের টিনের বেড়া ও ছাউনীর ৬টি ঘর আগুনে সম্পূর্ন পুড়ে যায়।

ফায়ার সার্ভিস কর্মিরা আসার আগেই এলাকাবাসি আগুন নিয়ন্ত্রন করলেও সব কিছু পুড়ে যায়। আগুনে তাদের চাল,ডাল, পরিধানের পোষাক, ছাগল ও মুরগী পুড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়।

বিরামপুরে গবাদী পশু পালন প্রশিক্ষণের উদ্বোধন

নয়ন হাসান বিরামপুর (দিনাজপুর) উপজেলা প্রতিনিধি-দিনাজপুরের বিরামপুরে বেকার যুবক যুবতীদের বেকারত্ব দূরিকরণে ও কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে উপজেলা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের আয়োজনে রাজস্ব খাতের আওতায় গবাদী পশু পালনে যুব নারী ও পুরুষদের মাঝে অপ্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়েছে।

১১নভেম্বর বুধবার উপজেলার ৫নং বিনাইল ইউনিয়নের মোহনপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মেজবাউল ইসলাম মন্ডলের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রশিক্ষণের শুভ সূচনা করেন, উপজেলা চেয়ারম্যান খায়রুল আলম রাজু।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা জমিল উদ্দিন মন্ডল,উপজেলা আওয়ামীলীগের যুম্ম-সাধারণ সম্পাদক গোলজার হোসেন, দপ্তর সম্পাদক মামুনুর রশীদ মামুন,  ৫নং বিনাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আঃ করিম মাষ্টার, বিনাইল উচ্চ বিদ্যালের প্রধান শিক্ষক মামুনুর রশিদসহ প্রমুখ।